বুধবার  ০৫ অক্টোবর ২০২২,   আশ্বিন ১৯ ১৪২৯,  ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

গাজীপুরে স্বামীর হাতে নারী সাংবাদিক খুন

প্রকাশিত: ২০:২৪, ১৯ আগস্ট ২০২২

গাজীপুরে স্বামীর হাতে নারী সাংবাদিক খুন

গাজীপুরে স্বামীর হাতে নারী সাংবাদিক খুন

গাজীপুরে এক নারী সাংবাদিককে তার প্রেমিক স্বামী খুন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। জেলার কালিয়াকৈর থানাধীন উত্তর গজারিয়া পাড়া এলাকার মোস্তফা খানের বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। বৃহষ্পতিবার শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিহতের লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়।

নিহতের নাম- শানু হোসেন (৩৬)। তিনি ঢাকার দক্ষিণ খান বৈশাখীর মোড় এলাকার রাজ্জাক চৌধুরীর মেয়ে এবং মৃত আবুল কালাম আজাদের স্ত্রী। অভিযুক্ত প্রেমিক রফিকুল ইসলাম (৩৫) রফিক টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থানার ডৌহাতলী এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে।

নিহতের মেয়ে নাজনীন জাহান বলেন, আমার মা একজন সাংবাদিক। তিনি ঢাকার একটি পত্রিকায় ক্রাইম রিপোর্টার হিসেবে কাজ করতেন। বাবার মৃত্যুর পর তিনি আমাকে নিয়ে ঢাকার দক্ষিণ খান এলাকার বাসায় থাকতেন। প্রায় আড়াইমাস আগে গাজীপুরে কাজ আছে বলে বাসা থেকে বের হন তিনি। এরপর হতে কালিয়াকৈরের একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন। গতকাল (বুধবার) সন্ধায় জানতে পারি তিনি মারা গেছেন। আমার ধারণা আমার মা’কে হত্যা করা হয়েছে।

কালিয়াকৈর থানার এসআই আমজাদ হোসেন জানান, গত প্রায় আড়াই থেকে তিন মাস ধরে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে এক যুবককে নিয়ে কালিয়াকৈর থানাধীন উত্তর গজারিয়া পাড়া এলাকার মোস্তফা খানের বাড়িতে এক কক্ষের ভাড়া বাসায় থাকতেন এক সন্তানের জননী শানু হোসেন। রফিকের সঙ্গে কালিয়াকৈরের বাসায় থাকলেও মাঝে মধ্যে তিনি ঢাকায় প্রথম সংসারের মেয়ের কাছে যেতেন। রফিকুল ইসলাম নামের ওই যুবকটি স্থানীয় স্ক্যান টেক্স পোশাক কারখানায় চাকুরি করতেন। শানুর মেয়ে শান্তা মারিয়াম ইউনিভার্সিটির ছাত্রী নাজনীন জাহান ঢাকায় থাকেন। বুধবার দুপুরের পর রফিক বাসায় ফিরেন। এসময় শানু বাসায় ছিলেন। তাদের সাড়া শব্দ না পেয়ে প্রতিবেশিরা সন্ধ্যায় ঘরে গিয়ে শানু আক্তারের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। রাতে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এসময় সেখান থেকে একটি পত্রিকার আইডি কার্ড পাওয়া যায়। তবে কার্ডটির সত্যতা পাওয়া যায় নি। ঘটনার পর থেকে নিহতের কথিত স্বামী রফিক পলাতক রয়েছে। নিহতের মুখের দু’পাশে রক্ত জমাট বাঁধা ছিল। তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করার পর রফিক পালিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কালিয়াকৈর থানার ওসি আকবর আলী খান জানান, এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। ঘটনার পর থেকে নিহতের কথিত স্বামী রফিক পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।