বুধবার  ০৫ অক্টোবর ২০২২,   আশ্বিন ১৯ ১৪২৯,  ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

হারারেতে হারলেই বাংলাদেশের জন্য দুঃসংবাদ

প্রকাশিত: ১০:২৩, ১০ আগস্ট ২০২২

হারারেতে হারলেই বাংলাদেশের জন্য দুঃসংবাদ

বাংলাদেশ ক্রিকেট দল

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে হারলে হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় পুড়বে বাংলাদেশ। আর তা হলে ২১ বছর পর জিম্বাবুয়ের কাছে এমন কিছুর সাক্ষী হবে টিম টাইগার্স। এ ফরম্যাটে সবশেষ ২০০১ সালে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করেছিল জিম্বাবুয়ে। এদিকে শেষ ম্যাচের পরাজয় প্রভাব ফেলবে র‌্যাংকিংয়েও। ১ ধাপ অবনতিতে তামিম ইকবালের দল নেমে যাবে অষ্টম স্থানে।

হারারেতে হেরেই চলেছে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর ৯ বছরের ব্যবধানে হাতছাড়া হয়েছে ওয়ানডে সিরিজটাও। তৃতীয় ম্যাচের আগে তো রীতিমতো চোখ রাঙানি দিচ্ছে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা।

নিজেদের প্রিয় ফরম্যাটে এ জিম্বাবুয়েকেই হেসেখেলে হারানোর অভ্যাস বাংলাদেশের। ২০১৩ সালের পর টানা ১৯ ম্যাচে জয়। চলতি সফরে সে জয়যাত্রার সমাপ্তি ঘটে। এখন তো ২১ বছর আগের লজ্জা এড়ানোটাই একমাত্র লক্ষ্যে পরিণত হয়েছে টিম বাংলাদেশের।

সবশেষ ২০০১ সালে জিম্বাবুয়ের কাছে ওয়ানডেতে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল বাংলাদেশ। খালেদ মাসুদ পাইলটের নেতৃত্বাধীন দলটি, তিন ম্যাচের তিনটিতেই হারের মুখ দেখেছিল। ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত সে সিরিজে খেলা কোনো ক্রিকেটারই নেই বর্তমান টাইগার স্কোয়াডে।

এরপর ২১ বছরে দুই দল হেঁটেছে দুই মেরুতে। দিনে দিনে বাংলাদেশের উন্নতির বিপরীতে জিম্বাবুয়ে হাতড়ে বেরিয়েছে নিজেদের ফেলে আসা সোনালি অতীত। তবে চলতি সিরিজে সব হিসাব-নিকাশ বদলে দিয়েছে সিকান্দার রাজারা।

জিম্বাবুয়ের কাছে হোয়াইটওয়াশ কেবল দুই দশক আগের স্মৃতি ফেরাবে না, প্রভাব ফেলবে বর্তমান র‌্যাংকিংয়েও। তৃতীয় ওয়ানডেতে হার এড়াতে না পারলে অষ্টম স্থানে নেমে যাবেন তামিম ইকবালরা।

৯৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সিরিজ শুরু করেছিল বাংলাদেশ। র‌্যাংকিংয়ের ১৫তম স্থানে থাকা দলটির বিপক্ষে সহজভাবেই সিরিজ জয়ের প্রত্যাশাই ছিল টাইগারদের। তবে টানা দুই হারে বড় প্রভাব পড়েছে আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে। জায়গা বাঁচাতে তৃতীয় ম্যাচে তাই জয়ের বিকল্প নেই তাদের সামনে।

হোয়াইটওয়াশ হলে ৭ রেটিং পয়েন্ট হারাবে বাংলাদেশ। ৯৮ থেকে রেটিং পয়েন্ট কমে দাঁড়াবে ৯১-তে। ৯২ রেটিং নিয়ে আটে থাকা শ্রীলঙ্কা তখন টপকে যাবে টাইগারদের। তাই সপ্তম স্থান ধরে রাখতে হলেও হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর বিকল্প নেই সফরকারীদের সামনে।