• মঙ্গলবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১২ ১৪২৮

  • || ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

গাজীপুর কথা

পূবাইলে ডাকাতি করতে গিয়ে র‌্যাবের হাতে ৪ ডাকাত গ্রেফতার

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ১ ডিসেম্বর ২০২১  

ডাকাতি করতে গিয়ে গাজীপুরের পূবাইলে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়নের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের চার সক্রিয় সদস্য। ডাকাত দলটি গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে ডাকাতি করার চেষ্টা করছিল। এই চক্রটি গত বছর দুয়েক সময়ে ডিবি পরিচয়ে ১২ থেকে ১৫টি ডাকাতি করেছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।
বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) সকাল ৬টার দিকে গাজীপুরের পূবাইল থানার মীরেরবাজার তালটিয়া বাসস্ট্যান্ড এলাকার রানা সিএনজি স্টেশনের সামনের রাস্তায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাব।
এসময় তাদের কাছ থেকে দুইটি খেলনা পিস্তল, পুলিশ ইউনিফর্মের চারটি শার্ট, তিনটি প্যান্ট, চারটি ডিবি জ্যাকেট, দুইটি পুলিশের কটি, এক জোড়া বুট, দুইটি ম্যাগজিন পাউচ, একটি হ্যান্ডকাফ, একটি লাইট, একটি ওয়াকি-টকি সেট, একটি বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট, একটি সিআইডি নোটবুক ও পাঁচটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।
ডিবি পরিচয়ে ২ বছর ধরে ডাকাতি, র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার ৪

র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার চার জন হলেন— ঢাকা জেলার মৃত আব্দুল জলিল মিয়ার ছেলে মো. আব্দুল মান্নান মিয়া (৪৭), গাজীপুর জেলার মো. কামাল হোসেনের ছেলে মো. জুলফিকার আলী বাবু (৩৫), গাজীপুর জেলার মো. কামাল হোসেনের ছেলে মো. লুৎফর রহমান আশিক (২৫) ও গাজীপুর জেলার মো. শহিদুল ইসলামের ছেলে মো. সাইফুল ইসলাম (১৯)।
র‍্যাব-১-এর সহকারী পুলিশ সুপার নোমান আহমদ জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার আসামিরা একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকার করে। তারা পরস্পর যোগসাজশে ডিবি পরিচয়ে দীর্ঘদিন ধরে গাজীপুরের টঙ্গী এবং আশেপাশের এলাকায় সাধারণ লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মোবাইল, টাকা-পয়সা, সোনার অলংকার ও মূল্যবান সামগ্রীসহ সর্বস্ব ডাকাতি করে নিয়ে যায় বলেও জানায়।
র‍্যাব আরও জানায়, ডাকাত চক্রের মূল হোতা মো. আব্দুল মান্নান ও জুলফিকার আলী বাবু ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ইস্কাটন রোড পুলিশ অফিসার্স মেসে মেসওয়েটার হিসেবে চাকুরি করত। সেখান থেকেই তারা পুলিশ কর্মকর্তাদের কাজের ধরন জানতে পারে। সে অনুযায়ী নিজেরাই ডিবি পুলিশ সেজে ডাকাতির পরিকল্পনা করে।
নোমান আহমেদ বলেন, প্রায় দুই বছর ধরে তারা ১২ থেকে ১৫টি ডাকাতি করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এই চক্রে আরও কয়েকজনের জড়িত থাকার তথ্য পাওয়া গেছে। তাদের গ্রেফতারে কাজ করছে র‌্যাব।

গাজীপুর কথা
গাজীপুর কথা