ঢাকা,  মঙ্গলবার  ২৮ মে ২০২৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

হজে যাওয়ার আগে জেনে নিন

প্রকাশিত: ২০:২৮, ২৯ মে ২০২৩

হজে যাওয়ার আগে জেনে নিন

ফাইল ছবি

- খুব শান্ত মনে ঘর থেকে বের হয়ে হজের উদ্দেশে যাত্রা করুন।
-এতটুকু পরিমাণ টাকা-পয়সা সঙ্গে নিন-যেন নিজের প্রয়োজনীয় ব্যয় নির্বাহের পর ফকির-মিসকিনদের কিছু দান-সদকা করতে পারেন।

- হজ শ্রমসাধ্য ব্যাপার। তাই যে কোনো পরিস্থিতির জন্য নিজেকে তৈরি রাখুন। পরিবার-পরিজনকে তাকওয়া অবলম্বন ও পূর্ণ শরিয়তের অনুসরণের উপদেশ দিন।

- যতটুকু সম্ভব বেডিংপত্র হালকা রাখুন। আপনার মালপত্র আপনাকেই বহন করতে হবে। আপনার সঙ্গী-সাথী প্রত্যেকেই হাজী, প্রত্যেকেই আল্লাহর ঘরের মেহমান, প্রত্যেকেই সম্মানিত ব্যক্তি। হজের সময় অন্যকে সহযোগিতা করা খুব কঠিন ব্যাপার। 

- সঙ্গীদের সম্মানের চোখে দেখা উচিত এবং তাদের ইচ্ছাকৃত বা অনিচ্ছাকৃত ভুল-ত্রুটিকে নিজগুণে ক্ষমা করে দেওয়া দরকার। আশা করা যায়, আল্লাহ আপনাকে ক্ষমা করে দেবেন।

- সঙ্গীদের অসুখ-বিসুখে তাদের পাশে দাঁড়ান। প্রয়োজনে বাংলাদেশ হজ মিশনের অধীনে নির্ধারিত মেডিকেল বা ডাক্তারখানায় নিয়ে যান। 

-সঙ্গীদের আক্রমণাত্মক কথাবার্তাকে ধৈর্য ও হেকমতের সঙ্গে এড়িয়ে চলুন।

- অপ্রয়োজনীয় যে কোনো কথাকে না বলুন। আল্লাহর বাণী-‘আর যখন তারা কোনো ধরনের অহেতুক কথা শ্রবণ করে, তখন তা উপেক্ষা করে চলে এবং (শান্তভাবে) বলে দেয়, আমাদের কাজের ফল আমাদের জন্য এবং তোমাদের কাজের ফল তোমাদের জন্য; তোমাদের প্রতি ‘সালাম’। আমরা অজ্ঞদের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে চাই না।’ (সূরা কাসাস, আয়াত : ৫৫)

- পথ খরচে কেউ কারও সঙ্গে শরিক না হওয়াই ভালো। প্রত্যেকেই নিজের খরচ নিজে বহন করুন। একান্ত একত্রে খরচ করতে হলে হিসাব পরিষ্কার রাখুন।

-টাকা-পয়সা ও মূল্যবানসামগ্রী খুব সাবধানে রাখুন। অসতর্কতায় তা হারা যেতে পারে।

- হজব্রত পালন করতে এসে যতটুকু সম্ভব কেনাকাটা এড়িয়ে চলুন। যদি একান্ত কিছু কিনতেই হয়, তবে হজ শেষ হওয়ার আগে নয়।

- সবসময় নিজ দৃষ্টিকে সংযত রাখুন। হজপালনকারীর জন্য উচিত ভিড়ের মাঝে নিজের দৃষ্টিকে সংযত করে নিচের দিকে রাখা। কারণ, অতি সহজেই চোখের পলকে চোখের গোনাহ্ হয়ে যায়। 

- সবসময় জিকির-আসকার, দোয়া-দরুদ ও তাওবা-ইসতিগফারে নিমগ্ন থাকুন। মনে রাখাবেন, এমন মূল্যবান মুহূর্ত আপনার জীবনে আর না-ও আসতে পারে। 

(মরহুম শেখ গোলাম মুহীউদ্দীন (রহ.) রচিত কিতাবুল হজ অবলম্বনে)