ঢাকা,  মঙ্গলবার  ২৮ মে ২০২৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

ড. ইউনূস মার্কিন ডেমোক্র্যাটিক পার্টিকে ডোনেশন দেন : কামরুল

প্রকাশিত: ১৫:৫৭, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ড. ইউনূস মার্কিন ডেমোক্র্যাটিক পার্টিকে ডোনেশন দেন : কামরুল

.

নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস বাংলাদেশে উপার্জিত অর্থ থেকে মার্কিন ডেমোক্র্যাটিক পার্টিকে ডোনেশন করেন বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। 

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর)  জাতীয় প্রেস ক্লাবের মাওলানা মোহাম্মদ আকরাম খাঁ হলে জয় বাংলা ঐক্য মঞ্চ আয়োজিত ‘বিচার বিভাগের ওপর নগ্ন হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা’য় তিনি এ কথা বলেন। 

ড. ইউনূস প্রসঙ্গে কামরুল ইসলাম বলেন, ইউনূস সাহেব উপার্জন করেন বাংলাদেশে। সুদের টাকা হোক আর যেভাবেই হোক, কিন্তু ডোনেশন করে দেন আমেরিকার ডেমোক্র্যাট পার্টিকে, আমাদের এখানে না। সবাই শহীদ মিনার ও স্মৃতিসৌধে যান, কিন্তু তাকে কেউ কখনো দেখেনি‌। ওয়ান-ইলেভেনের সময় তার ভূমিকা ছিল; বিএনপি আজকে তার পক্ষ নিয়েছে। অথচ ওয়ান-ইলেভেনের সময় তিনি খালেদা জিয়াকেও মাইনাস করতে চেয়েছিলেন। শুধু আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনাকেই তিনি মাইনাস করতে চাননি, খালেদা জিয়াকেও মাইনাসের পক্ষে তিনি ছিলেন। তিনি নিজের দল করতে চেয়েছিল। সেই বিএনপি আজকে তার পক্ষে।

তিনি বলেন, ড. ইউনূসকে নিয়ে আজকে তারা (বিএনপি) নতুন করে যেভাবে মাঠে নেমেছে, বক্তৃতা-বিবৃতি দিচ্ছে, বিচার বিভাগের ওপর নগ্ন হস্তক্ষেপ... এসব কিছুর পেছনে একটি উদ্দেশ্য আছে। মাহাত্ম্য হচ্ছে আজকে যারা আমাদের বিচার বিভাগ ও মানবাধিকার নিয়ে প্রশ্ন তোলে, গণতন্ত্রের কথা বলে, দেশের আভ্যন্তরীণ ব্যাপারে যারা নগ্ন হস্তক্ষেপ করে, তারাই আজকে ড. ইউনুসকে নিয়ে মাথা নাড়ছে। আবার আরেকটি ওয়ান-ইলেভেনের মত সরকার গঠন করতে চায়। এটা আমাদের বুঝতে হবে। 

তিনি আরও বলেন, আমরা সুষ্ঠু নির্বাচন চাই, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন চাই, প্রধানমন্ত্রীও বারবার সেটাই বলছেন। তিনি ঘোষণা করেছেন যে, নির্বাচন সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য হবে। সরকার কোনোভাবে নির্বাচন কমিশনের ওপর প্রভাব বিস্তার করবে না। বিদেশ সফরে গিয়েও তিনি এগুলো বলে এসেছেন। কিন্তু তারা (বিএনপি)  নির্বাচনে আসবে না। তারা সরকার ও শেখ হাসিনার পদত্যাগ চায়।

সাবেক এই খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা সজাগ না থাকলে কিন্তু মহাবিপদ। ষড়যন্ত্র কিন্তু চলছে, গভীর ষড়যন্ত্র। ষড়যন্ত্রের ডালপালা চারদিকে বেষ্টিত। নির্বাচন বানচাল করার জন্য এবং একটি অগণতান্ত্রিক সরকার আনার আবার সেই ষড়যন্ত্র চলছে। ষড়যন্ত্র চলছে ওয়ান-ইলেভেনের মতো আরেকটি সরকার নিয়ে আসার। আবার এরশাদের কায়দায় কিংবা জিয়ার কায়দায় সরকার আনা যায় কি না এর ষড়যন্ত্র চলছে। তারা বাংলাদেশকে আবার পেছনের দিকে নিয়ে যেতে চায়। 

জয় বাংলা ঐক্য মঞ্চের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক নাজমা কাউসারের সঞ্চালনায় এতে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক আব্দুল মান্নান চৌধুরী, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, সাবেক ছাত্রনেতা ইসমত কাদির গামা ও দক্ষিণ মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহআলম মুরাদ।