ঢাকা,  শনিবার  ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

রাতে বাড়ছে কাশি? মোকাবিলায় কী করবেন

প্রকাশিত: ১৯:০৫, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

রাতে বাড়ছে কাশি? মোকাবিলায় কী করবেন

প্রতীকী ছবি

শীতে অনেকেরই সর্দি, কাশির সমস্যা বাড়ে। কিন্তু রাতে কাশি বেশি হলে ঘুমের সমস্যা তৈরি হয়। ফলে শরীর ক্লান্ত হয়ে পড়ে। এর পাশাপাশি কাশির কারণে গলা ও ফুসফুসে ভাইরাল সংক্রমণের আশঙ্কাও বেড়ে যায়। অনেক সময় কাফ সিরাপ খেয়েও উপকার হয় না। সেক্ষেত্রে ঘরোয়া কিছু প্রতিকার মেনে চলতে পারেন। যেমন-

শুকনো আদা : শুকনো আদায় গরম ভাব রয়েছে। এ কারণে এটি খাওয়ার মাধ্যমে রাতে কাশির সমস্যা থেকে তাৎক্ষণিক উপশম পাওয়া যায়। এর সঙ্গেই গলায় জমে থাকা শ্লেষ্মাও সহজেই দূর হয়ে যায়, ফলে আরাম পাওয়া যায়। এছাড়া গরম করা আদা খেলেও কাশির সমস্যায় উপকার পাওয়া যায়।

আদা চা : গরম চা সবসময়ই গলার জন্য ভাল। আর যদি রাতের কাশির কারণে সমস্যায় পড়েন তাহলে রাতে ঘুমানোর আগে আদা এবং গোল মরিচ দিয়ে তৈরি করা চা থেকে পারেন। তাতে অনেকাংশে গলায় আরাম পাওয়া যাবে। কাশি কম থাকলে রাতে ঘুমও ভাল হবে।

গরম পানি : যদি রাতের বেলা একটানা কাশির কাশির সমস্যা হয়, তাহলে গরম পানি খাওয়া খুবই উপকারি। এতে শুধু কাশিই কমে না, গলার সংক্রমণ থেকেও রক্ষা পাওয়া যাবে।

মধু: যদি কারও ধূমাপানের মতো নেশা থাকে তাহলে রাতে কাশির সমস্যা হওয়া একটা সাধারণ ব্যাপার। সে জন্য রাতে ঘুমানোর আগে এক চামচ মধু খেয়ে নিন। তাতে কাশির সমস্যা অনেকটাই কমানো যাবে। এছাড়া মধু বুকে জমে থাকা কফ তরল করে বের করতেও সাহায্য করে।

প্রোবায়োটিক : প্রোবাোটিক সরাসরি কাশি উপশম করে না, তবে অন্ত্রে ব্যাকটেরিয়ার ভারসাম্য বজায় রেখে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ইমিউন সিস্টেম দুর্বল হলে কাশি প্রবণতা বাড়তে পারে। সেক্ষেত্রে প্রোবোয়োটিক এমন সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করতে পারে। চিকিৎসকের পরামর্শে প্রোবায়োটিকের সাপ্লিমেন্ট খেতে পারেন।