ঢাকা,  শনিবার  ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

প্রথম দেশ হিসেবে ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দিচ্ছে পোল্যান্ড!

প্রকাশিত: ১১:৪৬, ১৭ মার্চ ২০২৩

প্রথম দেশ হিসেবে ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দিচ্ছে পোল্যান্ড!

মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান - ফাইল ছবি

প্রথম দেশ হিসেবে ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে পোল্যান্ড। ইউক্রেনকে তারা চারটি মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) রাজধানী ওয়ারশতে এক সংবাদ সম্মেলনে আন্দ্রেজ দুদা বলেন, আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই ইউক্রেনকে চারটি মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান বুঝিয়ে দেওয়া হবে। পরবর্তী সময় দেশটিকে আরও যুদ্ধবিমান দেবে পোল্যান্ড। এ জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

দুদা আরো জানান, ইউক্রেনকে সব মিলিয়ে ১০ থেকে ২০টি যুদ্ধবিমান দেওয়া হতে পারে। এর আগে গত মঙ্গলবার পোল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী মাতিউসজ মোরাভিয়েৎস্কি ইঙ্গিত দেন, আগামী চার থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমানগুলো দেওয়া হতে পারে।

গত বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে রুশ হামলা শুরুর পর থেকে কিয়েভের পাশে রয়েছে প্রতিবেশী পোল্যান্ড। লাখো শরণার্থীকে আশ্রয় দেওয়ার পাশাপাশি ইউক্রেনকে সব ধরনের সহায়তা দিয়ে আসছে দেশটি। এর আগে রুশবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে ইউক্রেনকে ১৪টি জার্মানির তৈরি অত্যাধুনিক লেপার্ড-২ ট্যাংক দিয়েছে পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্যদেশ পোল্যান্ড।

এদিকে ন্যাটো জোটভুক্ত দেশ হিসেবে পোল্যান্ডের এমন পদক্ষেপকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করা হচ্ছে। পোল্যান্ডের পাশাপাশি ইউরোপের আরেক দেশ স্লোভাকিয়াও ইউক্রেনকে মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান দেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে। তবে এ বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি দেশটি।

ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী মিতে ফ্রেডরিকসেন জানিয়েছেন, ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দেওয়ার বিষয়ে তার দেশে আলাপ-আলোচনা চলছে।

দীর্ঘদিন ধরে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানিসহ পশ্চিমা মিত্রদের কাছে সামরিক সহায়তা হিসেবে যুদ্ধবিমান চেয়ে আসছিলেন। তার ভাষ্য, সাম্প্রতিক সময়ে আকাশপথে হামলা বাড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়া।

একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালানো হচ্ছে। তাই রাশিয়াকে প্রতিহত করতে হলে তার দেশের যুদ্ধবিমান প্রয়োজন।

সূত্র: রয়টার্স