ব্রেকিং:
"গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি আ ক ম মোজাম্মেল হক, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ।" "বিশিষ্ট সাংবাদিক, ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো’ গানের রচয়িতা আবদুল গাফফার চৌধুরী আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের শোক।"
  • বৃহস্পতিবার   ১৯ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

গাজীপুর কথা

গুদাম থেকে ১ লাখ ২৭ হাজার লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ১২ মে ২০২২  

পাবনা শহরসহ বিভিন্ন স্থানে পাঁচ ব্যবসায়ীর গুদামে লুকিয়ে রাখা এক লাখ ২৭ হাজার লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের সাড়ে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।
জেলা গোয়েন্দা পুলিশ এবং জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর মঙ্গল ও বুধবার এসব অভিযান পরিচালনা করে।
জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি জানান, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল বুধবার রাত ৯টার দিকে পাবনা শহরের দিলালপুর উত্তম কুমার কুন্ডর গুদামে অভিযান চালায়। এ সময় তার গুদামে লুকিয়ে রাখা ৪৬ হাজার ৪০০ লিটার সয়াবিন তেল উদ্ধার করা হয়। ব্যবসায়ী উত্তম কুমার কুন্ড তার গোডাউনে ওই সয়াবিন তেলগুলো বাজারে না ছেড়ে বেশি মুনাফার অসৎ উদ্দেশ্যে মজুদ করেছিল। 
অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবুল হাসনাত গুদাম মালিক উত্তম কুমার কুন্ডকে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড দেন। পরে জব্দ করা ভোজ্যতেল দুদিনের মধ্যে সরকার নির্ধারিত মূল্যে বিক্রয় করার নির্দেশ দেওয়া হয়। 
একই দিন জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল জেলার বেড়া উপজেলার বাণিজ্যকেন্দ্র কাশিনাথপুর এলাকায় ব্যাংক সুনীলের গুদামে অভিযান চালিয়ে ৩০ হাজার লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা করে। এ সময় বাবুল ও খোকন নামে দুজনকে আটক করা হয়। পরে বেড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সবুর আলী ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বাবুল মিয়াকে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং খোকন আলীকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া জব্দকৃত সয়াবিন তেল দুদিনের মধ্যে স্থানীয় প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে বিক্রির নির্দেশ দেন। 
একই সময়ে কাশিনাথপুর মীর স্টোরের গুদামে অভিযান পরিচালনা করে আরও ৩০ হাজার লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়। পরে সাঁথিয়া উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. কামরুজ্জামান গুদাম মালিক আবুল খায়েরকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করেন এবং জব্দ সয়াবিন তেল তিন দিনের মধ্যে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এবং পুলিশের তত্ত্বাবধানে সরকার নির্ধারিত মূল্যে বিক্রয়ের জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। 
একই দিন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের একটি দল পাবনার সুজানগর পৌর বাজারের নন্দিতা সিনেমা হল রোডের ঘোষ স্টোরের মালিক শ্রী দুলাল ঘোষের বাড়ি ও গুদাম তিন হাজার ১৩৭ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করেন। এ ঘটনায় ওই ব্যবসায়ীকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের আভিযানিক দল। 
বুধবার দুপুর ১২টার দিকে সুজানগর পৌর বাজারের নন্দিতা সিনেমা হল রোডের ঘোষ স্টোরের মালিক শ্রী দুলাল ঘোষের বাসা বাড়ি ও গোডাউন থেকে এ তেল উদ্ধার ও জরিমানা করা হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অবৈধভাবে সয়াবিন তেল মজুত রাখার খবর পেয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের পাবনার একটি অভিযানিক দল এ অভিযান চালায়। 
এ সময় বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ও বিভিন্ন সাইজের প্যাকেটজাত ও বোতলজাত এক হাজার ৭০২ লিটার এবং এক হাজার ৪৩৫ লিটার ড্রামভর্তি সয়াবিন তেল উদ্ধার করা হয়। ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের মালিক শ্রী দুলাল ঘোষকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। 
এর আগে মঙ্গলবার জেলার ঈশ্বরদীতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের একটি দল ঈশ্বরদী বাজারের শ্যামল স্টোরের গুদামে অভিযান চালিয়ে ১৮ হাজার লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করে। 
এ সময় ওই ব্যবসায়ীকে মাত্র ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ দুটি অভিযানে নেতৃত্ব দেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের পাবনা অফিসের সহকারী পরিচালক জহিরুল ইসলাম।

গাজীপুর কথা
গাজীপুর কথা