ঢাকা,  মঙ্গলবার  ১৮ জুন ২০২৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

জলাবদ্ধতা

ডিএনসিসির হটলাইনে ২৪ ঘণ্টায় ২৮১ ফোন কল

প্রকাশিত: ১৩:১৯, ২৮ মে ২০২৪

ডিএনসিসির হটলাইনে ২৪ ঘণ্টায় ২৮১ ফোন কল

ফাইল ছবি

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকার প্রধান প্রধান সড়কগুলো থেকে ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে ভারী বর্ষণে জমে থাকা পানি নিষ্কাশন করেছে বলে দাবি করছে সংস্থাটি।

ডিএনসিসির হটলাইনে (১৬১০৬) ২৪ ঘণ্টায় ২৮১ নাগরিক ফোন করে জলাবদ্ধতাসহ নানান সমস্যার কথা জানিয়েছে। সে অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন।

ডিএনসিসির মুখপাত্র মকবুল হোসাইন বলেন, হটলাইনে সোমবার সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত মোট ২৮১ জন নাগরিক ফোন করে গাছ ভেঙে পড়া ও পানি জমে থাকার তথ্য জানিয়েছেন। দ্রুত সময়ের মধ্যে কুইক রেসপন্স টিম পৌঁছে ভাঙা গাছ ও পানি অপসারণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সোমবার সারারাত ডিএনসিসির ১০টি কুইক রেসপন্স টিম এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা কাজ করে ডিএনসিসি এলাকার সব প্রধান সড়ক থেকে পানি সরিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি জানান, বিভিন্ন এলাকার গলি বা নিচু এলাকার শাখা রাস্তাগুলো থেকে পানি অপসারণ করার কাজ চলমান রয়েছে। কুইক রেসপন্স টিম এবং পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা ঘুরে ঘুরে শাখা রাস্তাগুলোতে কোথাও জমে থাকা পানি পেলে অপসারণ করছে। নতুন ওয়ার্ডগুলোতে যেসব সড়কে নির্মাণ কাজ চলমান সেসব সড়কে পানি সরাতে কিছুটা সময় লাগছে।

গতকাল রাতে ডিএনসিসি এলাকায় সড়কে উপড়ে পড়া মোট ৮৪টিসহ মোট প্রায় ২০০টি গাছ সরানো হয়েছে বলেও জানান মকবুল হোসাইন।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় রেমালের ফলে সৃষ্ট অতি ভারী বর্ষণের ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় জলাবদ্ধতা নিরসনে ডিএনসিসির ৫ হাজার ৩শ পরিচ্ছন্নতা কর্মী ও ১০টি কুইক রেসপন্স টিম কাজ করছে। প্রতিটি কুইক রেসপন্স টিমে ১০ জন করে মোট ১০০ সদস্য রয়েছে। এছাড়া ডিএনসিসির হটলাইন ১৬১০৬ নম্বরের মাধ্যমে যেসব এলাকা থেকে জলাবদ্ধতা কিংবা গাছ ভেঙে পড়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে, সেখানেই দ্রুত লোক পাঠিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে পুরো কার্যক্রম নগর ভবনের কেন্দ্রীয় মনিটরিং সেন্টার থেকে সার্বক্ষণিক তদারকি করা হচ্ছে।