ব্রেকিং:
"গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি আ ক ম মোজাম্মেল হক, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ।" "বিশিষ্ট সাংবাদিক, ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো’ গানের রচয়িতা আবদুল গাফফার চৌধুরী আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের শোক।"
  • বৃহস্পতিবার   ১৯ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

গাজীপুর কথা

বঙ্গবন্ধু ১০০ জাতের ধান চাষে সফল চাষি

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ১১ মে ২০২২  

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) উদ্ভাবিত বঙ্গবন্ধু ১০০ জাতের পুষ্টি সমৃদ্ধ ধান মেধাবী প্রজন্ম গড়বে। এমন প্রত্যাশা করেছে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট।

আগাম জাতের এই ধানে জিংক, প্রোটিনসহ পুষ্টি উপাদান রয়েছে যা অন্য ধানের তুলনায় অনেক বেশি। এ চালের ভাত খেলে শিশুর গড় উচ্চতা, বুদ্ধিমাত্রা ও স্টেমিনা বৃদ্ধি পাবে। গর্ভবতী মায়েদের দেহের জিংকের চাহিদা পুরণ করবে। এ ধানের ভাত গ্রহণের মাধ্যমে মেধাবী প্রজন্ম গড়ে উঠবে।

উপজেলার বাবুপাড়া গ্রামের কৃষক মো. ইসলাম শেখ বলেন, প্রতিকূল আবহাওয়া সহিষ্ণু এই ধানের আবাদে আমাদের সার, সেচ ও কীটনাশক খরচ হয়েছে অনেক কম। ধানটি সরু। খেতে সুস্বাদু। সেই সাথে প্রচুর পুষ্টিগুণ রয়েছে। এই ধানের চালের চাহিদা এবং বাজার দর প্রচলিত ধানের তুলনায় বেশি পাওয়া যাবে। আগাম জাতের এই ধানের বাম্পার ফলন আমাদের মুখে হাসি ফুটিয়েছে।

রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বলেন, পুষ্টি সমৃদ্ধ এই ধান হেক্টরে ৬.৬৬ টন ফলন হয়েছে। তবে এর চেয়ে আরো বেশি হয়। কিন্তু এ বছর আমাদের এখানে পানির সমস্যা থাকায় ফলন কম হয়েছে। উপজেলায় নতুন জাতের বঙ্গবন্ধু ধানের বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি ফুটিয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রতন কুমার ঘোষ বলেন, প্রচলিত ধানে সাধারণত কার্যকরী কুঁশি ১৮ টি থাকে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু ধানে কার্যকরী কুঁশির সংখ্যা ৩০টি। এ কারণে এ ধানের ফলন বেশি। এ ধানের আবাদ করে কৃষক পরের বছরে চাষাবাদের জন্য বীজ সংরক্ষণ করতে পারেন। পাংশায় এ বছর ১৮৬৫ হেক্টর জমিতে এই ধান চাষ হয়েছে। ফলনও হয়েছে অন্য ধানের তুলনায় বেশি তাই কৃষক আগামীতে লাভজনক এ ধানের আবাদে ব্যাপক আগ্রহ দেখাচ্ছেন। 

তিনি আরো বলেন, এ বছর আমরা পরীক্ষামূলকভাবে এই নতুন জাতের ধান বঙ্গবন্ধু ১০০ কিছু কৃষককে দিয়েছিলাম তাদের ফলন ভালো হওয়ায় তাদের দেখাদেখি উপজেলার অন্য কৃষকদের মাঝেও এই ধান চাষাবাদের আগ্রহ বেড়েছে। আশা করছি সামনের এ উপজেলায় নতুন এই ধানের ব্যাপক চাষাবাদ হবে এবং কৃষক লাভবান হবেন।

গাজীপুর কথা
গাজীপুর কথা