ঢাকা,  বুধবার  ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

বিমান বাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত হলেন ‘৩৯৮ জন’ রিক্রুট

প্রকাশিত: ২৩:১৫, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩

বিমান বাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত হলেন ‘৩৯৮ জন’ রিক্রুট

বিমান বাহিনী প্রধান শেখ আব্দুল হান্নান কুচকাওয়াজের অভিবাদন গ্রহণ করছেন।

জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগরে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ৫১তম নব বিমানসেনা দলের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে ৩৯৮ জন রিক্রুট যুক্ত হলেন বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে।

মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) রিক্রুটস ট্রেনিং স্কুলে (আরটিএস) এই কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজ পরিদর্শন এবং আকর্ষণীয় ও চৌকস মার্চপাস্ট-এর অভিবাদন গ্রহণ করেন। এরপর তিনি কৃতি রিক্রুটদের মধ্যে ট্রফি বিতরণ করেন।

এ কুচকাওয়াজের মধ্য দিয়ে মোট ২৫২ দিনের কঠোর প্রশিক্ষণ সফলভাবে সম্পন্ন করে দেশ সেবার ব্রত নিয়ে ৩৫৯ জন পুরুষ এবং ৩৯ জন মহিলাসহ ৩৯৮ জন রিক্রুট বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে অন্তর্ভুক্ত হলো। এসি-২ মিশু চন্দ্র রায় এবং এসি-২ ফয়সাল মোল্যা যথাক্রমে শিক্ষা ও জেনারেল সার্ভিস ট্রেনিং-এ সেরা রিক্রুট বিবেচিত হন। এসি-২ রায়হান শরীফ সার্বিক বিষয়ে কৃতিত্বের জন্য ‘শ্রেষ্ঠ রিক্রুট’ বিবেচিত হওয়ার গৌরব অর্জন করেন।

বিমান বাহিনী প্রধান তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনায় বিমান বাহিনীর উন্নয়ন ও আধুনিকায়নে ইতোমধ্যেই বিমান বাহিনীতে সংযোজিত হয়েছে অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান। এছাড়াও পরিবহন বিমান, বিভিন্ন ধরনের হেলিকপ্টার, উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন এয়ার ডিফেন্স রাডার, ক্ষেপণাস্ত্র ও গুরুত্বপূর্ণ সামরিক সরঞ্জাম। এই বাহিনীর সদস্যরা তাদের দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় নিজেরাই বিমান তৈরির মতো একটি অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং কাজ সম্পন্ন করেছে, যা শিগগিরই আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করবে।

তিনি আরও বলেন, আজ বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর অপারেশনাল কার্যক্রম দেশের গণ্ডি পেরিয়ে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ছড়িয়ে পড়েছে। জাতিসংঘ মিশন ছাড়াও দেশ-বিদেশে দুর্যোগকালে সরকারের মানবিক সহায়তা জনগণের কাছে দ্রুত পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে। বিমান বাহিনী প্রধান রিক্রুটদের সততা, একাগ্রতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যোগ্য বিমানসেনা হিসেবে নিজেদেরকে গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, তারা অকৃত্রিম দেশপ্রেমের প্রেরণায় উজ্জীবিত হয়ে বাংলার আকাশ মুক্ত রাখার দৃঢ় অঙ্গীকার বাস্তবায়নে সক্রিয় অবদান রাখবে।

এরআগে, বিমান বাহিনী প্রধান প্যারেড গ্রাউন্ডে এসে পৌঁছলে বিমান বাহিনীর ঘাঁটি জহুরুল হকের এয়ার অধিনায়ক এয়ার ভাইস মার্শাল মো. বদরুল আমিন এবং রিক্রুটস্ ট্রেনিং স্কুলের অধিনায়ক গ্রুপ ক্যাপ্টেন মো. আহসানুর রহমান তাকে স্বাগত জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী ও সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং স্থানীয় সামরিক ও বেসামরিক গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।