সোমবার  ০৫ ডিসেম্বর ২০২২,   অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৯,  ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

কাতার বিশ্বকাপ-২০২২

জয় ধারা অব্যহত রাখতে চায় নেদারল্যান্ড ও ইকুয়েডর

প্রকাশিত: ১৯:০১, ২৪ নভেম্বর ২০২২

জয় ধারা অব্যহত রাখতে চায় নেদারল্যান্ড ও ইকুয়েডর

ফাইল ছবি

গ্রুপ-এ’র নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আগামীকাল খালিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় মুখোমুখি হবে নেদারল্যান্ড ও ইকুয়েডর। এই মুহূর্তে গ্রুপের অপর দুই দল সেনেগাল ও কাতারকে পিছনে ফেলে প্রথম ম্যাচে জয়ী হয়ে উপরের দুটি স্থান দখল করে আছে নেদারাল্যান্ড ও ইকুয়েডর। আর তাই একে অন্যকে হারিয়ে দুই ম্যাচে দুই জয় নিয়ে গ্রুপের নিজেদের অবস্থানটা  আরো শক্তিশালী করতে চায় দুই দলই।

লুইস ফন গালের দল নেদারল্যান্ডস সোমবার নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফ্রিকান চ্যাম্পিয়ন সেনেগালকে ২-০ গোলে পরাজিত করে বিশ্বকাপের শুভ সূচনা করেছে। অন্যদিকে উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক কাতারকে একই ব্যবধানে পরাজিত করে ইকুয়েডরও পূর্ণ তিন পয়েন্ট অর্জন করে।

সেনেগালের বিপক্ষে এগিয়ে যেতে নেদারল্যান্ডকে ৮৪ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছে। তার আগে ম্যাচটি গোলশুন্য ভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিল। কোডি গাকপোর গোলে ডাচরা এগিয়ে যায়, এরপর ইনজুরি টাইমের নবম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করে দলের জয় নিশ্চিত করেন ডেভি ক্লাসেন। এর মাধ্যমে গ্রুপ-এ’র যাত্রাটা জয়ের মাধ্যমে শুরু করে ফন গালের শিষ্যরা। 

২০১৮ বিশ্বকাপে খেলতে ব্যর্থ হওয়া নেদারল্যান্ড নিজেদের আগের দুই বিশ্বকাপে দারুন খেলেছিল। ২০১০ বিশ্বকাপে ফাইনালে স্পেনের কাছে পরাজিত হয়ে রানার্স-আপ ও ২০১৪ বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান লাভ করেছিল অরেঞ্জরা। এ পর্যন্ত বিশ্বকাপ শিরোপা ঘরে তোলা হয়নি হল্যান্ডের। আর তাই গ্রুপ পর্বের বাঁধা পেরিয়ে এবারের বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডের লক্ষ্যটাও কিছুটা বেশি।

এবার তৃতীয় মেয়াদে ফন গালের অধীনে নেদারল্যান্ড বিশ্বকাপে খেলতে এসেছে। ক্যান্সারের সাথে লড়াই করা ৭১ বছর বয়সী ফন গাল অবসর ভেঙ্গে পুনরায় ডাচ দলের দায়িত্ব নিয়ে অনেকটাই সাহসী কাজ করেছেন। অতীত সাফল্য বিবেচনায় ফন গালের উপরই আস্থা রাখতে চেয়েছে ডাচরা। 

ফন গালের অধীনে নেদারল্যান্ড যদি গ্রুপ-এ’র শীর্ষ দল হিসেবে পরের রাউন্ডে যায় তবে শেষ ১৬’তে তাদের প্রতিপক্ষ হবে গ্রুপ-বি’র রানার্স-আপ। এক্ষেত্রে ইংল্যান্ড, ওয়েলস, যুক্তরাষ্ট্র কিংবা ইরানের মধ্যে যেকোন একটি দলকে তারা প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবে।

এই মুহূর্তে অবশ্য এতদুর ভাবছে না নেদারল্যান্ড। তাদের সামনে এখন পরবর্তী প্রতিপক্ষ অসম্ভব প্রতিভাবান ইকুয়েডর। গত রোববার স্বাগতিক কাতারের বিপক্ষে যারা অল আউট ফুটবল উপহার দিয়েছে। আট বছর পর বিশ্বকাপে ফিরে এসে লাতিন অঞ্চলের দলটি যেন নিজেদের প্রমানে মুখিয়ে আছে। দক্ষিণ আমেরিকান বাছাইপর্বে কঠিন বাঁধা পেরিয়ে চতর্থ স্থান লাভ করেছিল ইকুয়েডর। প্রথম ম্যাচে কাতারের বিপক্ষে দুটি গোলই করেছেন ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেডের সাবেক ফরোয়ার্ড এনার ভ্যালেন্সিয়া। 

১৬ মিনিটে স্পট কিক থেকে দলকে এগিয়ে দেবার পর ৩১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করেন। সামনে এখন তাদের গ্রুপের কঠিন দুই প্রতিপক্ষ অপেক্ষা করছে। শুক্রবার নেদারল্যান্ডের  পর মঙ্গলবার সেনেগালের বিপক্ষে মাঠে নামবে ইকুয়েডর। অন্য দিকে  হল্যান্ডের কাছে পরাজয়ের কারনে বিশ্বকাপের লড়াইয়ে ফিরে আসার জন্য মুখিয়ে আছে সেনেগাল।

রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলতে ব্যর্থ হওয়া লা ট্রাইকালাররা বা  সেনেগাল  ২০১৪ সালে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছিল।  ২০০৬ আসরে  শেষ ১৬’তে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পরাজিত হয়ে বিদায় নেবার আগে বিশ্বকাপে সেরা সাফল্য অর্জন করেছিল। যদিও কাতারে খেলার ব্যপারে কিছুটা হলেও ইকুয়েডরকে নিয়ে শঙ্কা ছিল। ডিফেন্ডার বায়রন কাস্তিলো নাগরিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে চিলি ও পেরু ইকুয়েডরের বিপক্ষে অবৈধ খেলোয়াড় খেলানোর অভিযোগ আনে। তবে সেই অভিযোগ নাকচ করে দিলেন দেশ দুটি সর্বোচ্চ ক্রীড়া আদালস সিএএস’এ আপিল করে। কিন্তু সেখানেও অভিযোগের কোন সত্যতা মিলেনি। 

দক্ষিণ আমেরিকান বাছাইপর্বে ১৮ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থান লাভ করে সরাসরি কাতারের টিকিট পায় ইকুয়েডর। বাছাইপর্বে শেষ সাত ম্যাচে মাত্র একটিতে পরাজিত হয়েছে আর্জেন্টাইন কোচ গুস্তাভো আলফারোর দল। এর মধ্যে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার সাথে দুটি ম্যাচেই তারা ১-১ গোলে ড্র করেছিল। আর এতেই দলটির আত্মবিশ্বাস বহুগুনে বেড়ে যায়।

সেনেগালের বিপক্ষে বার্সেলোনার তারকা মেমফিস ডিপে নিজেকে পুরোপুরি ফিট প্রমান করতে না পারায় শেষ ৩০ মিনিট বদলী বেঞ্চ থেকে মাঠে খেলেছেন। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ৪২ গোল করা এই এ্যাটাকারের কালকের ম্যাচে ভিনসেন্ট জানসেনের স্থানে মূল একাদশে খেলার আভাষ পাওয়া গেছে। তার সাথে আক্রমনভাগে আরো থাকবেন গাকপো ও স্টিভেন বার্গুইন। ফন গাল ৩-৫-২ ফর্মেশনের পরিবর্তনের কোন ইঙ্গিত দেননি। 

যে কারণে মধ্যমাঠে ফ্রেংকি ডি জং ও স্টিভেন বাগুইস ও ফুল-ব্যাক পজিশনে ডেনজেল ডামফ্রাইস ও ডালে ব্লিন্ডই থাকছেন। প্রথম ম্যাচে ইনজুরি শঙ্কায় থাকা মিডফিল্ডার মার্টিন ডি রুন শেষ কয়েক মিনিট খেলেছেন।

কাতারের বিপক্ষে দুই গোলের নায়ক ভ্যালেন্সিয়া হাঁটুর ইনজুরি পড়েছিলেন। কিন্তু সেটা ততটা গুরুতর না হওয়ায় ৩৩ বছর বয়সী এই অভিজ্ঞ স্ট্রাইকার শুরু থেকেই মাঠে থাকবেন বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। জাতীয় দলের হয়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ ৩৭ গোল করেছেন ভ্যালেন্সিয়া। 

দ্বিতীয় ম্যাচে একটি পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়েছেন আলফারো। ফরোয়ার্ড লাইনে মাইকেল এস্ট্রাডার স্থানে জেরেমি সারমিয়েনটোর খেলার সম্ভাবনাই বেশি।