সোমবার  ০৫ ডিসেম্বর ২০২২,   অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৯,  ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

কাতার বিশ্বকাপ-২০২২

যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে আধিপত্য ধরে রাখতে চায় ইংল্যান্ড

প্রকাশিত: ১৮:৫৯, ২৪ নভেম্বর ২০২২

যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে আধিপত্য ধরে রাখতে চায় ইংল্যান্ড

ফাইল ছবি

শুক্রবার দিনের শেষ ম্যাচে আল-বায়াতের আল খোর স্টেডিয়ামে যুক্তরাষ্ট্রের মুখোমুখি হবার আগে ইংল্যান্ডের একটাই লক্ষ্য প্রথম ম্যাচের দাপুটে মনোভাব ধরে রেখে দ্বিতীয় জয় নিশ্চিত করা।  বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

থ্রি লায়ন্সরা সোমবার ইরানকে ছয় গোল দিয়ে টুর্ণামেন্টে সূচনা করেছে। অন্যদিকে স্টার্স এন্ড স্ট্রাইপসরা ওয়েলসের সাথে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে বিশ্বকাপ শুরু করে।

চার বছর আগে সেমিফাইনালে খেলার আত্মবিশ্বাস থেকে ইউরো ২০২০’র ফাইনাল এসবই ইংল্যান্ডকে কাতারে আসার আগে বাড়তি অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে। অপেক্ষাকৃত তরুণদের নিয়েও যে বড় আসরে সাফল্য লাভ সম্ভব তা প্রমানে ইংলিশ কোচ গ্যারেথ সাউথগেটকে বেশ কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে। যদিও উয়েফা নেশন্স কাপের হতাশাজনক পারফরমেন্সে বিশ্বকাপের ঠিক আগে ইংলিশদের আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরেছিল। 

কিন্তু প্রথম ম্যাচেই ইরানকে দাঁড়াতে না দিয়ে ৬-২ গোলের জয়ে থ্রি লায়ন্সরা আবারো নিজেদের শক্তিমত্তার প্রমান দিয়েছে। বড় কোন আসরে প্রথম ম্যাচে এটাই ইংল্যান্ডের সবচেয়ে বড় জয়।

বুকায়ো সাকার জোড়া গোল সাথে জুড বেলিংহ্যাম, রাহিম স্ট্রার্লিং এবং এরপর বদলী বেঞ্চ থেকে উঠে এসে স্কোরশিটে নাম লিখিয়েনে মার্কোস রাশফোর্ড ও জ্যাক গ্রীলিশ। বড় এই জয়ে সাউথগেট বেশ কিছু ইতিবাচক দিক বেছে নিয়েছেন। যদিও পোর্তোর স্ট্রাইকার মেহদি টারেমির দুই গোলে ইরান সান্তনা পেলেও তা ম্যাচ শেষে ইংলিশ কোচকে স্বাভাবিক ভাবেই খুশী করতে পারেনি। শুক্রবার অল-আউট ফুটবল খেলে যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে নিজেদের মনোযোগ আরো বাড়ানোর আহবান জানিয়েছেন ইংলিশ বস।

ইরানের বিপক্ষে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ পয়েন্ট অর্জিত হলেও যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষেও সেই ধারা অব্যাহত রেখে দ্বিতীয় জয় নিশ্চিত করতে চায় ইংল্যান্ড। ১৯৮২, ২০০৬ ও ২০১৮ সালের পর চতুর্থবারের মত বিশ্বকাপের প্রথম দুই ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে নক আউট পর্বের পথে এগিয়ে যেতে মুখিয়ে আছে সাউথগেটের শিষ্যরা। রাশিয়া বিশ্বকাপে দ্বিতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ড ৬-১ গোলে পানামাকে বিধ্বস্ত করেছিল। সেই পানামা এবার কনাকাকাফ বাছাইপর্বে যুক্তরাষ্ট্রের পিছনে থেকে কাতার বিশ্বকাপের টিকিট পায়নি।

ইংল্যান্ড এ পর্যন্ত সব ধরনের প্রতিযোগিতায় যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ১১টি ম্যাচের আটটিতেই জয়ী হয়েছে। এই ম্যাচগুলোতে তারা সর্বমোট ৩৯ গোল দিয়েছে।  আগামীকাল যুক্তরাষ্ট্রকে পরাজিত করতে পারলে ইংল্যান্ডের শেষ ১৬ অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যাবে।

এদিকে ২০১৮ বিশ্বকাপে খেলতে না পারা যুক্তরাষ্ট্র প্রথম ম্যাচে ওয়েলসের বিপক্ষে যে ধরনের আক্রমনাত্মক ম্যাচ উপহার দিয়েছে তা দ্বিতীয় ম্যাচে অব্যাহত থাকলে ইংল্যান্ডকে বাড়তি সতকর্তা অবলম্বন করতেই হবে। টিমোথি উইয়াহর গোলে যুক্তরাষ্ট্র বিরতির ৯ মিনিট আগে লিড নিয়েছিল। কিন্তু গ্রেগ বারহল্টারের দল দ্বিতীয়ার্ধে ছন্দ হারিয়ে ফেলে। ৮২ মিনিটে পেনাল্টি স্পট থেকে তারকা স্ট্রাইকার গ্যারেথ বেল গোল করে ওয়েলসকে এক পয়েন্ট উপহার দেন। প্রথম ম্যাচের পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রে বারহল্টারের সমালোচনা চলছে। 

কিন্তু ক্রিস্টাল প্যালেসের সাবেক এই ফুটবলার বিশ্বাস করেন ওয়েলসের সাথে তার দল নিজেদের সর্বোচ্চ দেবার চেষ্টা করেছে। ৪৯ বছর বয়সী বারহল্টার এখনো নক আউট পর্বে যাবার ব্যপারে আশাবাদী।

এর আগে নিজেদের দুটি বিশ্বকাপে যুক্তরাষ্ট্র নক আউট পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিল। ২০১৪ সালে পর্তুগালের পর গ্রুপের দ্বিতীয় স্থান ও ২০১০ সালে ইংল্যান্ডকে টপকে প্রথম স্থান লাভ করেছিল। সর্বশেষ থ্রি লায়ন্সদের সাথে মোকবেলায় যুক্তরাষ্ট্র ১-১ গোলে ড্র করেছিল যা তাদের ফুটবলীয় ইতিহাসে অন্যতম সফল একটি ম্যাচ ছিল।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত খেলা দুটি ম্যাচের কোনটিতেই পরাজিত হয়নি যুক্তরাষ্ট্র। ২০১০ সালের ড্রয়ের আগে ১৯৫০ সালে গ্রুপ পর্বে ১-০ গোলে জয়ী হয়েছিল স্টার্স এন্ড স্ট্রাইপসরা। আল বায়াত স্টেডিয়ামে কাল তারই পুনরাবৃত্তি করতে মুখিয়ে আছে বারহল্টারের শিষ্যরা।

অধিনায়ক হ্যারি কেনের গোঁড়ালির ইনজুরি নিয়ে শঙ্কা থাকলেও ২৯ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার পুরো ফিট হয়ে দলে ফিরেছেন। ইরানের সাথে যে দলটি নিয়ে সাউথগেট মাঠে নেমেছিলেন সেই দলটির উপরই আস্থা রাখতে চাইছেন। হ্যারি ম্যাগুয়েরেও সুস্থ হয়ে উঠেছেন। কিয়েরান ট্রিপিয়ার, জন স্টোনস, লুক শ ম্যাগুয়েরর সাথে রক্ষনভাগ সামলাবেন। 

উরুর ইনজুরি কাটিয়ে দলের সাথে অনুশীলণ করেছেন কাইল ওয়াকার। কিন্তু ম্যানচেস্টার সিটির এই স্ট্রাইকারকে মূল দলে নামানোর কোন আভাষ পাওয়া যায়নি। হাঁটুর ইনজুরি থেকে এখনো অনুশীলনে ফিরতে পারেননি জেমস ম্যাডিসন। সেন্টার মিডফিল্ডে বেলিংহ্যাম, ডিক্লান রাইস ও ম্যাসন মাউন্টই থাকছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে ওয়েস্টন ম্যাককিনি ও ইউনুস মুসা উরু ও আঙ্গুলের ইনজুরি কাটিয়ে অধিনায়ক টাইলার এ্যাডামসের সাথে মূল দলে জায়গা ধরে রাখার লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। বারহল্টারের দলে ইংল্যান্ডে খেলা আটজনের মধ্যে এ্যাডামস অন্যতম। আর্সেনালের গোলরক্ষক ম্যাট টার্নারই খেলবেন মূল দলে। আক্রমনভাগে চেলসির ক্রিস্টিয়ান পুলিসিচের সাথে টিমোথি উইয়াহ ও নরউইচ সিটির জসুয়া সার্জেন্ট রয়েছেন।