বুধবার  ০৫ অক্টোবর ২০২২,   আশ্বিন ১৯ ১৪২৯,  ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

সাফারি পার্কে ক্যাঙ্গারু পরিবারে কেউ বেঁচে নেই

প্রকাশিত: ০৮:২৩, ২ আগস্ট ২০১৯

সাফারি পার্কে ক্যাঙ্গারু পরিবারে কেউ বেঁচে নেই

গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে ক্যাঙ্গারু পরিবারের কোনো সদস্য বেঁচে নেই; একের পর এক মৃত্যুর কারণে অরিক্স, জিরাফ, ব্লাক ওয়াইল্ড বিস্ট সঙ্গীহীন হয়ে পড়েছে।

সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তবিবুর রহমান বলেন, সাফারি পার্কে ২০১৩ সালের অগাস্ট মাসে প্রাণি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ফ্যালকন ট্রেডার্সের মাধ্যমে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে কিনে আনা হয় একটি পুরুষ ও দুটি স্ত্রী ক্যাঙ্গারু।

“প্রথম অবস্থায় দেশীয় আবহাওয়ার সঙ্গে নিজেদের খাপ খাইয়ে নিয়েছিল ক্যাঙ্গারু দম্পতি। ২০১৫ সালে এই দম্পতির ঘরে প্রথম ক্যাঙ্গারু শাবক জন্ম নিলেও সেটি মারা যায়। বছর খানেক পর ২০১৬ সালে ফের এই ক্যাঙ্গারো দম্পতি আরও  একটি মাদি বাচ্চার জন্ম দেয়।

তবে ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে পার্কের একমাত্র পূর্ণবয়স্ক পুরুষ ক্যাঙ্গারুটি মারা যাওয়ার পর পার্কটিতে ক্যাঙ্গারু পরিবারটি পুরুষশূণ্য হয়ে পড়ে। এতে নতুন প্রজন্ম আর সৃষ্টি হয়নি। পরে চলতি বছরের প্রথম দিকে দুটি মাদি ক্যাঙ্গারুও মারা যায়।”

তবিবুর বলেন, এ পার্কে আটটি অরিক্স আনা হলেও বর্তমানে আছে একটি মাত্র মাদি অরিক্স। আর পার্কের ১২টি জিরাফের মধ্যে টিকে বর্তমানে আছে পাঁচটি মাদি সদস্য। অরিক্স ও জিরাফ পরিবারে এখন কোন পুরুষ সদস্য নেই।

 

 

 

এছাড়া এ পার্কে ছয়টি ব্ল্যাক ওয়াইল্ড বিস্ট (ছোট দেশীয় কালো গরু সাদৃশ্য লম্বা লোমযুক্ত) আনা হয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে এ পার্কে শুধু একটি পুরুষ ব্ল্যাক ওয়াইল্ড বিস্ট রয়েছে।

 

“সঙ্গী না থাকায় এসব প্রাণিরা প্রজনন করতে পারছে না। তাই এদের সদস্য সংখ্যাও আপাত বাড়ছে না।”

তিনি বলেন, ক্যাঙ্গারু বিদেশী প্রাণি। তাই আবহাওয়ার তারতম্যের কারণে নিজেদের খাপ খাওয়াতে না পেরে ধাপে ধাপে মারা যায় ক্যাঙ্গারুগুলো।

“যেহেতু দেশীয় আবহাওয়া ক্যাঙ্গারুর বসবাসের জন্য উপযোগী নয় সেহেতু এ মুহুর্তে সাফারি পার্কে আপাতত নতুন করে ক্যাঙ্গারু আমদানি করার কোনো পরিকল্পনা নেই।”

তবে বাকি প্রাণিদের সঙ্গী আনার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে এ কর্মকর্তা জানান।

গাজীপুর কথা