রোববার  ২৬ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১২ ১৪২৯

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

শ্রীপুরে কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর সংখ্যা প্রায় ২২ হাজার

প্রকাশিত: ১৩:২৫, ২২ জুন ২০২২

শ্রীপুরে কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর সংখ্যা প্রায় ২২ হাজার

কোরবানির পশু

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় ঈদুল আজহায় কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর সংখ্যা প্রায় ২২ হাজার। এগুলোর মধ্যে গরুর সংখ্যা ১৫ হাজার; মহিষ, ভেড়া ও ছাগলের সংখ্যা প্রায় ৭ হাজার। উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কোরবানি উপলক্ষে উপজেলার বিভিন্ন খামার এবং ব্যক্তি পর্যায়ে গরু, মহিষ, ছাগল ও ভেড়া পালন করা হয়। স্থানীয়ভাবে চিটাগাং রেট কেটল, সিন্ধি, শাহি ওয়াল, ফিজিয়ান, ব্রাহমা ও দেশি জাতের গরুসহ বিভিন্ন জাতের ছাগল, ভেড়া, মহিষ পালন করা হয়। উপজেলায় ৭১০টির বেশি পশুর খামার রয়েছে। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ডিজাইন অ্যাগ্রো ফার্ম, ময়না ডেইরি ফার্ম, ফাইভ স্টার অ্যাগ্রো ফার্ম ও জিআর অ্যাগ্রো ফার্ম। এসব খামারে ঈদুল আজহার কোরবানির জন্য পশুর সংখ্যা প্রায় ২২ হাজার। এগুলোর মধ্যে খামারে রয়েছে ১১ হাজার ৭৪৭টি গরু। ব্যক্তিপর্যায়ে পালিত গরু রয়েছে ৩ হাজারের বেশি। এ ছাড়া ৭ হাজারের বেশি মহিষ, ভেড়া ও ছাগল রয়েছে।

খামারিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত দুই বছর করোনার কারণে ভালো দাম পাননি। এবার ভালো দাম পাবেন বলে আশা তাঁদের।

উপজেলার টেংরা গ্রামের ডিজাইন অ্যাগ্রো ফার্মের মালিক রাজিউল হাসান বলেন, গত দুই বছর করোনার কারণে লাভের মুখ দেখতে পারেননি গরুর খামারিরা। এবার গোখাদ্যের দাম বাড়তি থাকায় লাভ কম হতে পারে। এ ছাড়া শ্রমিকের মজুরিও এবার বেশি। ফলে লাভের অংশ নানাভাবে কমে যাবে।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. রুকনুজ্জামান পলাশ জানান, উপজেলায় বিভিন্ন খামার এবং ব্যক্তি পর্যায়ে ২২ হাজার কোরবানির পশু রয়েছে। নিয়মিত ফার্ম পরিদর্শন করে খোঁজখবর রাখছেন। আর লাম্পি স্কিন ডিজিজ একধরনের ভাইরাসজনিত রোগ। কয়েক দিন চিকিৎসা দিলে সেরে যায়। এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই।