ঢাকা,  সোমবার  ২২ জুলাই ২০২৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

শরীর সুস্থ ও সুন্দর রাখবে বেরি জাতীয় ফল

প্রকাশিত: ১৮:১৬, ১৭ জুন ২০২৪

শরীর সুস্থ ও সুন্দর রাখবে বেরি জাতীয় ফল

.

বেরি হল এক জাতীয় রসালো ফল বিশেষ। এদের রকমারি রঙের সাথে রয়েছে বিশেষ কিছু স্বাস্থ্যকর উপাদান। উদাহরণস্বরূপ বলা যায় ব্ল্যাকবেরি, স্ট্রবেরি, গুস বেরি ইত্যাদি। আপনি যদি স্ট্রবেরি, ব্লুবেরি, জাম জাতীয় ফল খেতে পছন্দ করেন, তাহলে আপনার জন্য রয়েছে সুসংবাদ। 

এক গবেষণায় দেখা গেছে, বেরি জাতীয় ফলগুলো বিশ্বের অধিক পুষ্টিকর খাদ্যের মধ্যে অন্যতম। এর তেমন কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে ঠিক কী কারণে ‘বেরি’ জাতীয় ফলকে বিশ্বের অন্যতম অধিক পুষ্টিকর খাদ্য তালিকায় ধরা হচ্ছে। 

চলুন এক নজরে জেনে নেই ‘বেরি’ জাতীয় ফলের উপকারিতা-

১. বেরি জাতীয় ফলগুলোতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস থাকে বলেই জানিয়েছেন গবেষকরা। আর এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস মানবদেহের কোষের ক্ষতি করতে পারে এমন উপাদান থেকে মানবদেহকে রক্ষা করে। শুধু তাই নয়, বেরি জাতীয় ফলগুলোর এই উপাদানটি মানবদেহের কোষকে সুস্থ রাখে এবং সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যের উন্নতি সাধন করে।

২. বেরি জাতীয় ফলগুলোতে অ্যানথোসায়োনেনস নামের অন্য আরেকটি উপাদান রয়েছে যা মানবদেহের রক্তের ইনসুলিন ভারসাম্য ঠিক রাখে ও রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি হ্রাস করে।

৩. প্রাকৃতিক আঁশের অন্যতম একটি ভাণ্ডার হচ্ছে বেরি জাতীয় ফল। যে বেরি জাতীয় ফলগুলোতে এই উপাদান থাকে তা গ্রহণ করলে হজমশক্তি ঠিক থাকে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য আশঙ্কা থাকে না।

৪. যেহেতু বেরিতে আঁশ জাতীয় উপাদান বেশি থাকে, তাই এগুলো আর্টারিস থেকে উচ্চমাত্রার কোলেস্টোরেল কমাতে সাহায্য করে এবং উচ্চমাত্রার কোলেস্টোরেল স্বাভাবিক মাত্রায় নিয়ে আসে।

৫. বেরি জাতীয় ফলে যে উপাদানগুলো বেশি থাকে, সেগুলোর একটি হচ্ছে ভিটামিন সি। আর এই ভিটামিন সি এবং বেরি জাতীয় ফলের অন্যতম উপাদানগুলো মানবদেহের প্রতিটি কোষকে আরো শক্তিশালী করে তোলে, যাতে করে সেগুলো রোগ প্রতিরোধে আরো বেশি সক্ষম হয়ে উঠে।

৬. বেরিতে কিছু এমন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যেগুলোতে ‘অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামাটরি’ উপাদান বিদ্যমান। এই উপাদানগুলো শরীরের ব্যথা কমাতে এবং ক্ষেত্রবিশেষে মানুষকে সুস্থ করে তুলতে সাহায্য করে।

৭. বেরি জাতীয় ফলে যেহেতু অ্যান্টিঅ্যাক্সিডেন্ট পরিমাণে বেশি থাকে এবং সেগুলো কোষ মাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে, সেহেতু এই জাতীয় ফলগুলো বেশকিছু সংখ্যক ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমিয়ে দেয় বলেই জানিয়েছেন গবেষকরা।