সোমবার  ০৫ ডিসেম্বর ২০২২,   অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৯,  ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

অপু বিশ্বাসকে নিয়ে বুবলীর পুরনো স্ট্যাটাস ভাইরাল

প্রকাশিত: ১৬:২৪, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

অপু বিশ্বাসকে নিয়ে বুবলীর পুরনো স্ট্যাটাস ভাইরাল

শাকিব-অপু-বুবলি

সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে সন্তানের ছবি ও নাম প্রকাশ করেছেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নায়িকা শবনম বুবলী।

সন্তানের বাবা হিসেবে শাকিব খানের নাম জানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন এ নায়িকা।পরে একই ধরনের পোস্ট দিয়ে সন্তানের স্বীকৃতি দিয়েছেন শাকিবও।
বিয়ের বিষয়টি অস্পষ্ট রাখলেও শাকিব-বুবলী দুজনেই জানিয়েছেন, তার ছোট্ট রাজপুত্রের নাম শেহজাদ খান বীর। 

প্রকাশ্যে আসার আগেই শেহজাদের বয়স আড়াই বছর। শাকিব-বুবলীর পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, ২০২০ সালের ২১ মার্চ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ড জুয়িশ মেডিকেল হাসপাতালে জন্ম হয়েছে বুবলীর ছেলের।  যদিও বিয়ের বিষয়টি স্পষ্ট করেননি তারা।

এদিকে এমন সব খবরের বেড়াজালে ভাইরাল হয়েছে ২০১৭ সালে দেওয়া বুবলীর একটি স্ট্যাটাস। যেখানে অপু বিশ্বাস কেন দীর্ঘসময় সন্তানকে লুকিয়ে রেখেছিলেন সে প্রশ্ন করেছেন বুবলী। 

অপুর প্রতি বুবলীর প্রশ্ন ছিল— ২০০৮ সালে বিয়ের পরও কেন এত বছর বিষয়টি আড়াল করেছেন তিনি? সংসার ও সন্তানের চাইতে কি ফিল্মের ক্যারিয়ার বড় তার কাছে?
পাঠকের উদ্দেশে বুবলীর সেই পোস্ট তুলে ধরা হলো—  

‘ব্যাপারটি কি emotional নাকি professional ? কোনটি ? একদম recent issue নিয়ে যদি কথা হয় তা হলে আমার মন্তব্য না করাটাই শ্রেয়। কারণ এটি সম্পূর্ণ যার যার ব্যক্তিগত ব্যাপার , আর আমি স্বভাবতই নিজের মতো থাকতে পছন্দ করি; কিন্ত যখন সেখানে আমার কিছু issues মানুষ নিয়ে আসে, তখন তো সেখানে স্বাভাবিকভাবে অনেকেই জানতে চাইছে এবং অনেক phone calls পাচ্ছি এসব নিয়ে যে আমি কীভাবে দেখছি! 

By the way আমি প্রথমেই একটা জিনিস জানতে চাই গতকাল কেন অপু বিশ্বাস এত দিনের আড়াল ভেঙে সরাসরি channel এ গিয়ে এসব কথা বললেন? কই এত দিন তো যাননি, কারও সামনে আসতে চাননি... কেন? কই সাংবাদিক ভাইয়েরা তো এত চেষ্টা করেও সামনে আনতে পারলেন না, মুখ খোলাতে পারলেন না; বরং আপনারা নাকি যখন জিজ্ঞেস করেছেন, তখন নাকি নানান কথা বলেছে।  তার ভাষ্যমতে, ২০০৮ সাল থেকে সে বিবাহিত তা হলে এতদিন কেন মর্যাদা চাননি? শাকিব না হয় লুকিয়েছে, সে লুকায়নি? কেন career-এর জন্য? একজন wife-এর কাছে career এতই বড়? Career নিয়ে ভাবা ঠিক আছে but নিজের মর্যাদা আদায়-এর আগে কি career?’

এর পর বুবলী লেখেন, ‘অপু বিশ্বাস আরও বলেছেন— তার সাথে শাকিবের গত এক বছরের মতো কথা হয় না, এটি কি কোনো সম্পর্কের জন্য স্বাভাবিক? তখনো তো স্বীকৃতি চাইতে সবার সামনে এলো না। কেন? সে আরও বলল— তার delivery হয়েছে গত বছর September-এ, তা হলে তখন আসলো না স্বীকৃতির জন্য। কেন? শাকিব না হয় লুকিয়েছে, সে লুকায়নি? একজন মায়ের কাছে কি সন্তানের থেকে career বড়? কই গত পরশু দিন পর্যন্ত তো সে বাচ্চাটির স্বীকৃতি চাইল না!’

অপু বিশ্বাস কেন সন্তানকে নিয়ে হঠাৎ লাইভে এলেন, তার ব্যাখ্যাও দেন বুবলী।

তিনি লেখেন— ‘এবার আসি কেন (অপু বিশ্বাস) আসলেন সামনে...গতকাল যখন একটি পত্রিকায় news হলো 'রংবাজ' ছবি নিয়ে, তখন তার নাকি মাথা খারাপ হয়ে গেল আমার নাম দেখে। সে চায় না শাকিব-বুবলী একসাথে কাজ করুক। সে শাকিবকে লোক মারফতে জানালো তাকে নিয়ে একটি ছবির news করাতে, না হয় আমাকে নিয়ে ছবির news off করাতে না হলে এটার শেষ দেখে ছাড়বে সে। আজকে এখানে বুবলী না থেকে অন্য কেউ থাকতে পারত, যার সাথে শাকিবের জুটি গড়ে উঠেছে, অপু বিশ্বাস যেটা আগের অনেক নায়িকাদের ক্ষেত্রে করতে দেয়নি, যা শাকিব নিজেই বলেছে। কেন রাজ্জাক sir শাবানা ম্যাডাম, রাজ্জাক sir ববিতা ম্যাডাম, রাজ্জাক sir কবরী ম্যাডাম জুটি ছিলেন না? রিয়াজ ভাই শাবনুর আপু, রিয়াজ ভাই পূর্ণিমা আপু জুটি ছিলেন না? এমন তো অনেক উদাহরণ আছে। কিন্তু অপু বিশ্বাস তার বাইরে কোনো জুটি established হোক এমনটি চায়নি বলেই কি তার মর্যাদা এতদিন চাইল না আর সন্তানের স্বীকৃতি এতদিন চাইল না। আজকে এই movie করা নিয়েই তো এত কিছু, তাকে নিয়ে movie declaration আসলে কি সে বাচ্চার স্বীকৃতি চাইত ? লুকিয়ে রাখত না?  ধরলাম শাকিব না করেছে বলতে, কিন্তু মা হয়ে সে কি করল? এখন movie নিয়ে problem হলো বলে সবার সামনে এসে সব বলছে?’

বুবলী আরও লেখেন, ‘একজন মানুষকে তারকা বানায় তার দর্শকরা, তার ভক্তরা;  যার জন্য আমি আমার দর্শক এবং আমার ভক্তদের কাছে কৃতজ্ঞ এত অল্প সময়ে আমাকে এত ভালোবাসা দেওয়ার জন্য। আর আজকে আমি ‘বসগিরি দিয়ে entry না করলে ‘প্রিয়া রে" ছবি দিয়ে আসতাম। কারণ সব প্রস্তুতি সেভাবেই নেওয়া হয়েছিল। যেটি ওই ছবির director, producer থেকে শুরু করে অনেকেই জানেন।  ‘প্রিয়া রে' তো অন্য কারও movie ছিল না, তখন সে (অপু) কি বলত ?
আর হ্যাঁ, সহশিল্পীদের সবার সাথে সবার ভালো understanding থাকে, যেটি আমার সাথে শাকিবের আছে এবং থাকবে। তাকে অনেক শ্রদ্ধা করি, যেটি একদিনে তৈরি হয় না যে একদিনে কমে যাবে। Because Shakib Khan is our pride and always will be’