ঢাকা,  বুধবার  ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

রুবেল ভাই বলেছিলেন, আমাকে তো কেউ খোঁজে না: সুষমা সরকার

প্রকাশিত: ১৬:০৯, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

রুবেল ভাই বলেছিলেন, আমাকে তো কেউ খোঁজে না: সুষমা সরকার

রুবেল ভাই বলেছিলেন, আমাকে তো কেউ খোঁজে না: সুষমা সরকার

হঠাৎ অসুস্থ হয়ে বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) মারা যান শক্তিমান অভিনেতা আহমেদ রুবেল। ওই দিন সন্ধ্যায় নুরুল আলম আতিকের নতুন সিনেমা ‘পেয়ারার সুবাস’ এর বিশেষ প্রদর্শনী ছিল। প্রদর্শনীতে যোগ দেয়ার কথা ছিল রুবেলের। তবে তা আর হয়ে ওঠেনি। তার সঙ্গে কাজের স্মৃতি নিয়ে গণমাধ্যমে কথা বলেছেন অভিনেত্রী সুষমা সরকার। 

তিনি বলেন, আমি প্রদর্শনীতে এসে আতিক ভাইকে ফোন দেই। তখন আমি তাকে বলি আপনি কই? আতিক ভাই বলেন আমি হাসপাতালে, রুবেল একটু অসুস্থ। তখন আমি ভাবলাম আমরা তো অনেক রাত জাগি, আমাদের লাইফস্টাইলটাই এমন। আমরা চাইলেও নিয়মানুবর্তিতার মধ্য দিয়ে চলতে পারি না। আমি ভেবেছি তিনি হয়তো একটু স্ট্রেসের মধ্যে আছে, হয়তো একটু ঝামেলা গেছে-এমনই কিছু ভেবেছিলাম।

সুষমা সরকার বলেন, আমি যখন শো-তে এসেছি, তখন খুব ভালো লাগছিল। জাস্ট উড়ছিলাম। কিন্তু যখন শুনলাম রুবেল ভাই আর নাই, তখন কয়েক সেকেন্ড থমকে গেছি। তিনি নাই মানে কী! পরে ঘটনাটি ব্যোম বাস্টিংয়ের মতো ছড়িয়ে গেল। তখন বুঝতে পারছিলাম না যে কি হতে যাচ্ছে, কী হবে। এখানে এত মানুষ এসেছে। তারপর রুবেল ভাইকে দেখতে ওখানে (হাসপাতাল) যাই। তাকে যখন দেখলাম, তখন মনে হলো তিনি ঘুমিয়ে আছেন। এখন ডাকলেই মনে হয় উঠবেন।

তিনি বলেন, রুবেল ভাই একটু সময় পেলেই সেটে ঘুমিয়ে যেতেন। তিনি বলতেন আমি একটু ঘুমাই। তারপর তাকে ডেকে বলতে হতো শট-শট। যখন রুবেল ভাইয়ের সঙ্গে আমার দেখা হয়, তখন তাকে একটা কথাই বলতাম-এত ভালো কাজ করেন, এত পাওয়ারফুল অভিনেতা আপনি। আপনাকে পাই না কেন? এত দুর্দান্ত কাজ হচ্ছে ওটিটিতে। এখন তো সেটি ভালো পারফর্মারদের খুঁজছে, আপনাকে কেন পাই না। তখন রুবেল ভাই একটা কথাই বলেছিলেন যে, আমাকে তো কেউ খোঁজে না।

প্রসঙ্গত, আহমেদ রুবেল কর্মজীবন শুরু করেন সেলিম আল দীনের ‘ঢাকা থিয়েটার’ দলের মাধ্যমে। পরবর্তীতে তিনি বাণিজ্যিক সিনেমাসহ মোট ছয়টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। তারপর তিনি চলচ্চিত্র শিল্প ছেড়ে টেলিভিশন নাটকে অভিনয় করেন এবং সফল হন। রুবেল অভিনীত প্রথম নাটক গিয়াস উদ্দিন সেলিমের ‘স্বপ্নযাত্রা’। এরপর তিনি হুমায়ূন আহমেদের ঈদ নাটক ‘পোকা’-তে অভিনয় করেন, যেখানে তার অভিনীত ‘গোরা মজিদ’ চরিত্রটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে।

এরপর একুশে টেলিভিশনের ধারবাহিক নাটক ‘প্রেত’-এ অভিনয় করেন। ‘প্রেত’ নাটকটি মুহম্মদ জাফর ইকবালের একই নামের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত। এর পরিচালক আহির আলম। এছাড়া তিনি হুমায়ূন আহমেদের বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘শ্যামল ছায়া’ সিনেমায় অভিনয় করেন।

মঞ্চ ও ছোট পর্দার অভিনেতা রুবেল ১৯৯৩ সালে ‘আখেরী হামলা’ সিনেমার মাধ্যমে রুপালি পর্দায় (চলচ্চিত্রে) পা রাখেন। পরে তিনি অভিনয় করেছেন ‘চন্দ্রকথা’, ‘ব্যাচেলর’, ‘গেরিলা’ ও ‘দ্য লাস্ট ঠাকুর’ সিনেমায়।

অভিনেতা রুবেল ১৯৬৮ সালের ৩ মে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের রাজারামপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম আয়েশ উদ্দিন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের ইসলামপুর মহল্লায় তার মাতুলালয় (নানির বাড়ি)। পিতা-মাতার বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরে হলেও ছোটবেলা থেকেই বেড়ে উঠেছেন ঢাকা শহরে, বর্তমানে পরিবারের সঙ্গে ঢাকার গাজীপুরে স্থায়ীভাবে বসবাস করছিলেন।