শনিবার  ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩,   মাঘ ২১ ১৪২৯,  ১৩ রজব ১৪৪৪

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

নেত্রকোণায় দরিদ্র দুই ব্যবসায়ীর ৩০০ হাঁস মেরে ফেলল প্রতিপক্ষ

প্রকাশিত: ১৬:৪৬, ৪ ডিসেম্বর ২০২২

নেত্রকোণায় দরিদ্র দুই ব্যবসায়ীর ৩০০ হাঁস মেরে ফেলল প্রতিপক্ষ

নেত্রকোণায় দরিদ্র দুই ব্যবসায়ীর ৩০০ হাঁস মেরে ফেলল প্রতিপক্ষ

নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলায় ব্যবসায়িক শত্রুতার জেরে বিষ (কীটনাশক) মেশানো গম খাইয়ে দরিদ্র দুই হাঁস ব্যবসায়ীর ৩০০ হাঁস মেরে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া জীবিত বাকি ১০০ হাঁসের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। রোববার (৪ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার মাসকা ইউনিয়নের মাসকা বাজার সংলগ্ন আমবাগান নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

ক্ষতিগ্রস্ত দুই দরিদ্র হাঁস ব্যবসায়ী হলেন- মাসকা পশ্চিমপাড়া গ্রামের মৃত আজিম উদ্দিনের ছেলে সেকান্দর মিয়া ও মৃত হাসেম মিয়ার ছেলে সুলেমান মিয়া। এ ঘটনায় একই গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে বাদল মিয়া ও মৃত জুবেদ আলীর ছেলে বাক্কী মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হচ্ছে বলে জানান ক্ষতিগ্রস্তরা।

সেকান্দর মিয়া ও সুলেমান মিয়া বলেন, একসময় বাদল মিয়া ও বাক্কী মিয়ার সঙ্গে শেয়ারে হাঁস কেনাবেচার ব্যবসা করতাম। একপর্যায়ে তাদের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় ব্যবসা থেকে বাদল ও বাক্কী মিয়াকে বাদ দিই। এরই জেরে তারা দীর্ঘদিন ধরে আমাদের ক্ষতিসাধনের পাঁয়তারা করে আসছিল। আজ সকালে প্রতিদিনের মতো আমবাগান এলাকায় ভাড়া নেওয়া ঘরে থাকা ৪০০ হাঁসকে খাবার খাওয়ানোর জন্য বের করি। হাঁসগুলো ঘর থেকে বের হয়ে সামনের পতিত জায়গায় গম পড়ে থাকতে দেখে তা খেয়ে ফেলে। পরে পানি খাওয়ার জন্য পাশের পুকুরে নামতেই একে একে সবগুলো হাঁস মরতে শুরু করে।

ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী সেকান্দর ও সুলেমান আরও বলেন, বাক্কীর পরামর্শে বাদল মিয়া মাসকা বাজারের এক কীটনাশকের দোকান থেকে বিষ মেশানো গম কিনে আমাদের হাঁসগুলো যে পুকুরে নিয়মিত খায় সেই পুকুরের পাড়ে ফেলে রাখে। আমাদের কাছে এর তথ্য-প্রমাণও রয়েছে। আমরা এ ঘটনার উপযুক্ত বিচার চাই।

ঋণের টাকায় কেনা হাঁসগুলো মেরে ফেলায় এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন বলেও জানান এই দুই ব্যবসায়ী।

মাসকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুছ ছালাম বাঙ্গালী বলেন, ঘটনাটি খুবই মর্মান্তিক। গরিব এই ব্যবসায়ীদের হাঁসগুলো বিষ দিয়ে মেরে ফেলা জঘন্যতম অন্যায় হয়েছে। আমি এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট মহলের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি।

কেন্দুয়া থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ আলী বলেন, বিষ মেশানো গম খেয়েই হাঁসগুলোর মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।