শনিবার  ২৫ জুন ২০২২,   আষাঢ় ১১ ১৪২৯

Gazipur Kotha | গাজীপুর কথা

চাঁদা না দেয়ায় ঠিকাদারকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত: ০৪:৪৮, ১৮ মে ২০২২

চাঁদা না দেয়ায় ঠিকাদারকে কুপিয়ে জখম

নাটোরে চাঁদা না দেয়ায় আহমেদুল হক সজল (৩৯) নামে এক ঠিকাদারকে কুপিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। এসময় আজিজ ও তার ছেলেকে গণপিটুনী দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। 

মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শহরের উত্তর চৌকিরপাড় এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। 

ঠিকাদার আহমেদুল হক সজল শহরের আলাইপুর এলাকার প্রয়াত সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আমিনুল হক গেদুর ছেলে।

পুলিশ ও ঠিকাদার সমিতি সূত্রে জানা যায়, পৌরসভার অধীন রানী ভবানী রাজবাড়ি হতে উত্তর চৌকিরপাড় এলাকার একটি রাস্তায় পিচ কার্পেটিংয়ের কাজ চলছিল। ঠিকাদার আহমেদুল হক সজল কাজটি করছিলেন।  ওই কাজ শুরুর পর থেকেই ঠিকাদার সজলের কাছে চাঁদা দাবি করে আসছিলেন এলাকার আজিজুর রহমান ওরফে জামাই আজিজ ও তার ছেলে আশিকুর রহমান। 

মঙ্গলবারও তারা সজলের কাছে চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তারা বাপ-বেটা দুজনে মিলে সজলের ওপর চড়াও হয় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। 

সজলের চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। এসময় এলাকাবাসী সন্ত্রাসী আজিজ ও তার ছেলেকে গণপিটুনী দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। তারা দুজনই পুলিশ পাহারায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

চিকিৎসারত অবস্থায় চাঁদা দাবির অভিযোগ অস্বীকার করে আজিজ বলেন, রাস্তার কাজ নিম্নমানের হওয়ায় তিনি প্রতিবাদ করেছেন শুধু। কোন চাঁদা দাবি করেননি। সজলকে কারা মেরেছে তিনি জানেন না।
 
ঠিকাদার সজলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন জেলা ঠিকাদার সমিতির নেতৃবৃন্দ।

জেলা ঠিকাদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আওয়াল রাজা বলেন, ঠিকাদার সজলের উপর হামলার ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে নইলে সকল নির্মাণকাজ বন্ধ করে দেয়া হবে।

এদিকে, ঠিকাদার সজলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার খবর পেয়ে পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি সদর হাসপাতালে ছুটে যান এবং সজলের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতারসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

তিনি বলেন, এই ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার না হলে পরবর্তীতে পৌরসভার উন্নয়নমূলক কাজ করা সম্ভব হবে না।

নাটোর সদর থানার ওসি নাছিম আহমেদ বলেন, ঘটনার খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলসহ সদর হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়। গণপিটুনিতে আহত দুজনকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

গাজীপুর কথা