ব্রেকিং:
"গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে সভাপতি আ ক ম মোজাম্মেল হক, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ।" "বিশিষ্ট সাংবাদিক, ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো’ গানের রচয়িতা আবদুল গাফফার চৌধুরী আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের শোক।"
  • বৃহস্পতিবার   ১৯ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

গাজীপুর কথা

যে কোনো ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার নির্দেশ

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ১৪ মে ২০২২  

দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে বিএনপি-জামায়াতের নানামুখী ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে দেশবাসী ও জনগণকে সতর্ক থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনসহ স্থানীয় সরকার নির্বাচনে যাকে যেখানে মনোনয়ন দেয়া হবে তাকে জিতিয়ে আনার নির্দেশনা দেন দলীয় সভাপতি।
তিনি বলেন, দেশের বর্তমান পরিস্থিতি ভালো রয়েছে। দেশের মানুষও ভালো রয়েছেন। কিন্তু একটি মহল দেশকে নিয়ে হায়-হুতাশ সৃষ্টির চেষ্টা করছেন। যারা এটি করছেন, তারা উদ্দেশ্যমূলকভাবেই করছেন। এদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ ও সতর্ক থাকতে হবে। 
 শুক্রবার (১৩ মে) তার সরকারি বাসভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।   
এই বৈঠকে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ফুটবল এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আরফানুল হক রিফাতকে দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়। 
এছাড়া তিনটি উপজেলা পরিষদ, ছয়টি পৌরসভা এবং অন্যান্য ধাপের ১৩৮টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা যোগ দেন। 
সূত্রে জানা গেছে, দেশের সামগ্রিক অর্থনীতিকে সচল ও সবল রাখার জন্য তার সরকারের সার্বিক কার্যক্রম তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অর্থনীতির সকল সূচকে বাংলাদেশ ভালো অবস্থানে রয়েছে। ভালো অবস্থানে থেকেই বাংলাদেশ আরও এগিয়ে যাবে। তবে সরকারি ব্যয় সংকোচনের জন্য কিছু কিছু ক্ষেত্রে আমরা কাঁটছাট করছি। সতর্কতা অবলম্বন করছি। বৈঠকে কুসিকসহ স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন বিষয়ে আলোচনা হয়। মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতাদের বিষয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ ও বিভিন্ন জরিপে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে জনপ্রিয়, স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন ইমেজের প্রার্থীদের এসব নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। কুসিকসহ সব নির্বাচনে দল থেকে যাকেই প্রার্থী করা হোক না কেন, নেতাকর্মীদের তাদের পক্ষে কাজ করতে হবে।
শেখ হাসিনা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে আবার বলেন, আগামীতে যাকে মনোনয়ন দেয়া হবে, তার বিরুদ্ধে গিয়ে কেউ কাজ করলে, তাদের মনোনয়ন তো দূরের কথা, ভবিষ্যতে দলীয় পদ রাখা হবে না। এখানে সে যত বড়ই নেতা হোক। দলের বিরুদ্ধে কেউ অবস্থান নিলে, কোন ছাড় দেওয়া হবে না। 
কারো বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পেলে তাৎক্ষণিক ভাবে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন শেখ হাসিনা। কারো দুর্নীতি ও অপকর্মের দায় দল নেবে না। সামনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এই নির্বাচনে যাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে, নিজ যোগ্যতায় তাকে নির্বাচিত হয়ে আসতে হবে। কাউকে জিতিয়ে দেওয়ার দায়িত্ব আমার না। শুধু তাই নয়, সরকারি-বেসরকারি গোয়েন্দা সংস্থা দিয়ে দৈর্ঘ্য নেতাকর্মীদের খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। ওই রিপোর্টের ভিত্তিতেই আগামীতে মনোনয়ন দেয়া হবে। 
এ বৈঠকে অংশ নেন বোর্ডের সদস্য ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ ও রাশিদুল আলম, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, প্রেসিডিয়াম সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, কাজী জাফরুল্লাহ, লেফটেনেন্ট কর্নেল (অব.) ফারুক খান, আব্দুর রাজ্জাক, জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আব্দুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ।
আরফানুল হক বলেন, আমি দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং কুমিল্লার গণমানুষের নেতা আ ক ম বাহাউদ্দিনসহ দলের নেতা–কর্মীদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। দল আমার ওপর যে আস্থা রেখেছে, আমি মনে করি, প্রত্যাশিত সেই ফল আসবে।
আরফানুল হক ১৯৮০-৮১ সালে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের ক্রীড়া ও শরীরচর্চা সম্পাদক ছিলেন। তিনি কুমিল্লা জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এবং কুমিল্লা ক্লাবের নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ২০১৭ সাল থেকে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আছেন আরফানুল হক।
২০১১ সালের ১০ জুলাই কুমিল্লা সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠা হয়। ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি প্রথম ও ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ দ্বিতীয় দফা নির্বাচন হয়। দুটি নির্বাচনেই আওয়ামী লীগের সমর্থিত ও মনোনীত প্রার্থী মেয়র পদে পরাজিত হন। 
উল্রেখ্য, কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ১৭ মে, যাচাই-বাছাই ১৯ মে, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৬ মে। আগামী ১৫ জুন এ সিটিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। একই দিনে দেশের ছয়টি পৌরসভা ও ১৩৫ ইউনিয়ন পরিষদেও ভোটগ্রহণ হবে।
কুমিল্লা সিটিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে ১৪ জন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দেন। যারা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য এবং কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আঞ্জুম সুলতানা সীমা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এবং আওয়ামী লীগের দফতর উপ-কমিটির সদস্য মোহাম্মদ শাহজাহান, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরকানুল হক রিফাত, কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য মাসুদ পারভেজ খান, কুমিল্লা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মাহাবুবুর রহমান, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ওমর ফারুক, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য জাকির হোসেন, অধুনালুপ্ত কুমিল্লা পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা শ্যামল চন্দ্র ভট্টাচার্য, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা কাজী ফারুক আহমেদ, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক নূর উর রহমান তানিম, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের শিক্ষা সম্পাদক কবিরুল ইসলাম শিকদার, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আনিসুর রহমান প্রমুখ।
ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে কুসিকে ভোটগ্রহণ করা হবে বলে ইসি জানায়।
গত ৫ মে থেকে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু হয়। দলীয়ভাবে মনোনয়ন ফরম জমাদানের শেষ দিন ছিল।

গাজীপুর কথা
গাজীপুর কথা