ব্রেকিং:
করোনা আপডেট বাংলাদেশ ২১/০১/২০২১: করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৬ জনের মৃত্যু এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৯৬৬, নতুন ৫৮৪ জনসহ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫৩০২৭১ জন। নতুন ৬০২ জন সহ মোট সুস্থ ৪৭৫০৭৪ জন। একদিনে ১৪৭৬১টি সহ মোট নমুনা পরীক্ষা ৩৫১৫৪২৮টি।
  • শুক্রবার   ২২ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৮ ১৪২৭

  • || ০৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
২০৩৫ সালে বাংলাদেশ হবে বিশ্বের ২৫তম বৃহৎ অর্থনীতির দেশ: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে পৌঁছেছে ভারতের উপহার করোনা ভ্যাকসিন পরিকল্পিত নগর গড়তে আমরা রাতদিন কাজ করে যাচ্ছি : গাসিক মেয়র শুক্রবার থেকে আসছে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ শ্রীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে ভাল্লুক পরিবারে নতুন অতিথি নোয়াখালীর ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের জন্য নতুন থানার উদ্বোধন আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক উপ কমিটি’র সদস্য সচিব হলেন চুমকি এমপি `দ্বিতীয় কাঁচপুর, মেঘনা, গোমতী সেতু` : ব্যয় কমলো ১৫০০ কোটি টাকা বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে ২৫০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে বার্জার পেইন্টস বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা যাবে মোবাইলে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী কালিয়াকৈরে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন গাজীপুরে বিনামূল্যে দেয়া হবে করোনা ভ্যাকসিন, তালিকা শুরু
৯৯

স্ত্রী-সন্তানের কাছে না গিয়ে তরুণকে ইজিবাইক কিনে দিলেন সুমন

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ২৮ নভেম্বর ২০২০  

স্ত্রী-সন্তানদের দেখতে বিদেশে না গিয়ে টিকিটের জন্য জমানো টাকায় একজন অস্বচ্ছল তরুণকে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক কিনে দিয়েছেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। ওই তরুণ সুমনের ফুটবল একাডেমির খেলোয়াড়।

আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে তার খেলা বন্ধের উপক্রম হচ্ছিল।
 
শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) বিকেলে ফুটবল মাঠে তিনি ইজিবাইকটি হস্তান্তর করেন। এর দাম পড়েছে ১ লাখ ৫৪ হাজার টাকা। তবে উপকারভোগী তরুণের নাম প্রকাশ করেননি সুমন।
 
ইজিবাইক হস্তান্তরের পর এক ভিডিও বার্তায় ব্যরিস্টার সুমন বলেন, স্ত্রী-সন্তানকে দেখতে আগামী মাসে আমেরিকা যাওয়ার কথা ছিল আমার। টিকিটের জন্য ১ লাখ ৬০ হাজার টাকাও জমিয়েছিলাম। কিন্তু পরে আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমার ১৫ দিনের আনন্দের পরিবর্তে ওই যুবকের পরিবারে স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে দেব।
 
তিনি আরও বলেন, ছেলেটি আমার ফুটবল একাডেমিতে নিয়মিত খেলে। তার সংসারে মা ও এক বোন রয়েছে। টমটম (ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক) চালিয়ে সংসার চালায়। কিন্তু নিজের টমটম না থাকায় এর মালিককে প্রতিদিন ৩০০ টাকা ভাড়া দিতে হত। যা পরিশোধ করে তার চাহিদামত টাকা অবশিষ্ট থাকতো না। আবার তাকে ছুটিও দেওয়া হত না। যে কারণে সে নিয়মিত খেলাধুলায় অংশ নিতে পারছিল না।
 
সুমন বলেন, ওই যুবক লেগ ডিফেন্স খেলোয়াড়। ডান এবং বাম, দু’পায়েই ভাল খেলে। কিন্তু অভাবের কারণে ভবিষ্যত খারাপ হয়ে যাচ্ছিল। সমাজে অনেকেই আছেন যারা ১৫ দিনের সুখ জলাঞ্জলি দিলে একটি মানুষের জীবন বদলে যেতে পারে। তার পরিবারের কষ্ট দূর করতে আমি আমার ১৫ দিনের সুখ ত্যাগ করেছি। যার মাধ্যমে পৃথিবীতে সর্বশ্রেষ্ঠ প্রাণী মানুষের কর্তব্য পালন করেছি।
 
শুধু বক্তব্যবাজী না করে এভাবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশকে বদলে দেওয়ার জন্য তিনি সবার প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

গাজীপুর কথা
সারাদেশ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর