ব্রেকিং:
করোনা আপডেট বাংলাদেশ ০৫/০৫/২০২১: করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৫০ জনের মৃত্যু এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১ হাজার ৭৫৫ জন, নতুন ১ হাজার ৭৪২ জন সহ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭ লাখ ৬৭ হাজার ৩৩৮ জন। নতুন ৩ হাজার ৪৩৩জন সহ মোট সুস্থ ৬ লাখ ৯৮ হাজার ৪৬৫ জন । একদিনে ২০ হাজার ২৮৪ টি সহ মোট নমুনা পরীক্ষা ৫৫ লাখ ৬০ হাজার ৬৭৮ টি।
  • বৃহস্পতিবার   ০৬ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৩ ১৪২৮

  • || ২৪ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাষ্ট্রায়ত্ত্ব বাণিজ্যিক সংস্থাগুলোকে নিজ খরচে চলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী পূবাইলে যুবলীগের উদ্যোগে দরিদ্রদের মাঝে ইফতার বিতরণ শ্রীপুরে প্রধানমন্ত্রীর উপহার নগদ অর্থ বিতরণ দেশব্যাপী চলমান লকডাউন বা বিধিনিষেধ আগামী ১৬ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে ভালুকায় মেয়র ও কাউন্সিলরদের সাথে মত বিনিময় করেন এমপি ধনু শ্রমজীবীদের পাশে দাঁড়াতে বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান আওয়ামী লীগের ভালুকায় দুস্থদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে উপহার বিতরণ গাজীপুরের টঙ্গী প্রেসক্লাবের আগুন নিয়ন্ত্রণে এলপিজির দাম কমে এখন ৯০৬ টাকা গাজীপুর মহানগর যুবলীগের উদ্যোগে দরিদ্র মানুষের মধ্যে ইফতার বিতরণ

শ্রীপুরে বিক্রি করা জমির দখল না ছাড়তে অবরুদ্ধ হওয়ার নাটক

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০২১  

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার চকপাড়া গ্রামের মৃত ইয়াকুব আলীর ছেলে আতাবুল্লাহ এএএ টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে তার ভিটেমাটি বিক্রি করেন। তবে বিক্রির বেশ কিছু দিন পরও দখল ছাড়ছিলেন না তিনি।

কর্তৃপক্ষ কয়েক দফা সময় দেয় জমির দখল ছাড়ার জন্য। কিন্তু কর্তৃপক্ষের কথা শুনছিলেন না তিনি। পরে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ তাদের ক্রয়কৃত জমিতে সীমানাপ্রাচীর নির্মাণের কাজ শুরু করলে আর কিছু দিনের সময় প্রার্থনা করেন আতাবুল্লাহ। কিন্তু এবার প্রতিষ্ঠান সময় দিতে নারাজ। ফলে জমি দখলে রাখতে ভিন্ন ফন্দি আঁটে আতাবুল্লাহর পরিবার। তারা অবরুদ্ধ হওয়ার নাটক সাজান।  

বাসার পাশেই সীমানাপ্রাচীরে মই লাগিয়ে তারা ওঠানামা করার ভিডিও চিত্র ধারণ করেন। পরে রাস্তা বন্ধের নামে অবরুদ্ধ হওয়ার চিত্র ধারণ করে প্রচার করেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। শুরু হয় তোলপাড়। বিষয়টি জেলা প্রশাসকের নজরে আসলে তদন্ত কমিটি গঠন করেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ঘটনাস্থলে পাঠান খবর নেওয়ার জন্য। এতেই বেরিয়ে আসে অবরুদ্ধ হওয়ার নাটক সাজানোর ঘটনা। 

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসলিমা মোস্তারী বলেন, সোমবার (২৬ এপ্রিল) বিকেলে সেখানে গিয়ে দেখা যায়- বর্তমানে কৃষক পরিবারটি যে বাড়িতে রয়েছে সেই বাড়িতে যাতায়াতের ভিন্ন রাস্তা রয়েছে। বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার হওয়া মই দিয়ে একটি পরিবারের ওঠানামা করা, অবরুদ্ধ হওয়া সবই ছিল অভিনয়। 

পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কৃষক পরিবারটি বিক্রি হওয়া জমির দখল না ছাড়তে এমন নাটক করেছেন। এরপরও উভয়পক্ষকে যার যার মালিকানার স্বপক্ষে কাগজপত্র নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে আসার জন্য বলা হলেও অবরুদ্ধ হওয়ার নাটক করা পরিবারটি আসেনি। ক্রয়সূত্রে জমির মালিক প্রতিষ্ঠানটি তাদের মালিকানার স্বপক্ষে কাগজপত্র প্রদর্শন করেছে।

মাওনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম খোকন বলেন, এই জমির সঙ্গে আমার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। অথচ আমাকে জড়িয়ে বিভিন্নভাবে অপপ্রচার চালোনো হচ্ছে। জনপ্রিয়তা নষ্ট ও সামাজিক মর্যাদা ক্ষুণ্ন করার জন্য রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ইন্ধনে কিছু যুবকরা আমার নাম ব্যঙ্গ করে ফেসবুকে পোস্ট দিতে থাকে। সামাজিক মর্যাদা নিয়ে ছিনিমিনি খেলার কারণে ও সম্মানহানী হওয়ায় থানায় মামলা দায়ের করেছেন বলে জানান খোকন।

এএএ টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপক সুকুমার রায় বলেন, সম্প্রতি ভিন্ন ভিন্ন দলিলের মাধ্যমে কয়েকটি খতিয়ানে ১৫৯ শতাংশ জমি আতাবুল্লাহ গংরা আমাদের নিকট বিক্রি করেছেন। জমি বিক্রির পর অন্যত্র বাড়ি তৈরির জন্য কিছু সময়ের প্রয়োজন বলে তারা আমাদের নিকট সময় চান। তাদেরকে প্রথম দফায় সময় দেওয়া হয়। পরে স্থানীয় কিছু মানুষের ইন্ধনে এ জমির দখল ছাড়তে তারা নানা ধরনের তালবাহানা শুরু করে ফের আরও সময় দাবি করেন। তবে প্রতিষ্ঠানটি দ্রুত উৎপাদনে যাওয়ার স্বার্থে এখনই কাজ শুরুর প্রয়োজন হওয়ায় তাদেরকে বিক্রি করা জমির দখল ছাড়তে বলা হয়। বিভিন্নভাবে বসার পরও তারা সমাধানের পথে না গিয়ে নানাভাবে প্রতিষ্ঠানের নামে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছেন। বিভিন্নভাবে মানববন্ধন করেও অনেককে বিভ্রান্ত করছেন।

এদিকে অবরুদ্ধ হওয়ার নাটক সাজিয়ে তা প্রচারের বিষয়ে অভিযুক্ত আতাবুল্লাহর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।  তবে তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে স্ত্রী নাজমা আক্তার বলেন, পুরো বিষয়টি আমার স্বামী বলতে পারবেন। তিনি বাড়িতে নেই। 
এ বিষয়ে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম বলেন,বর্তমান সরকার মানুষের মৌলিক অধিকার নিশ্চিতে বদ্ধ পরিকর। কাউকে অবরুদ্ধ করা মানবিক অধিকার হরণ করার শামিল। বিভিন্ন মাধ্যমে খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসনের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার কোনো সত্যতা পায়নি। বর্তমানে তিনি (আতাবুল্লাহ) যে বাড়িতে রয়েছেন সেখানে প্রবেশের ভিন্ন সড়ক রয়েছে। তিনি মই বেয়ে অভিনয় করে বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করে মানুষের সহানুভূতি পাওয়ার চেষ্টা করেছেন। 

পরে জানা যায়, পুরো ভিটেমাটিই তিনি স্থানীয় এক প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করেছেন। আরও কিছুদিন তিনি এখানে থাকার দাবি জানিয়েছিলেন। কিন্তু সে প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তিনি অবরুদ্ধ হওয়ার নাটক সাজান।

গাজীপুর কথা
গাজীপুর কথা