ব্রেকিং:
করোনা আপডেট বাংলাদেশ ০৫/০৫/২০২১: করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৫০ জনের মৃত্যু এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১ হাজার ৭৫৫ জন, নতুন ১ হাজার ৭৪২ জন সহ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭ লাখ ৬৭ হাজার ৩৩৮ জন। নতুন ৩ হাজার ৪৩৩জন সহ মোট সুস্থ ৬ লাখ ৯৮ হাজার ৪৬৫ জন । একদিনে ২০ হাজার ২৮৪ টি সহ মোট নমুনা পরীক্ষা ৫৫ লাখ ৬০ হাজার ৬৭৮ টি।
  • বৃহস্পতিবার   ০৬ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৩ ১৪২৮

  • || ২৪ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাষ্ট্রায়ত্ত্ব বাণিজ্যিক সংস্থাগুলোকে নিজ খরচে চলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী পূবাইলে যুবলীগের উদ্যোগে দরিদ্রদের মাঝে ইফতার বিতরণ শ্রীপুরে প্রধানমন্ত্রীর উপহার নগদ অর্থ বিতরণ দেশব্যাপী চলমান লকডাউন বা বিধিনিষেধ আগামী ১৬ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে ভালুকায় মেয়র ও কাউন্সিলরদের সাথে মত বিনিময় করেন এমপি ধনু শ্রমজীবীদের পাশে দাঁড়াতে বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান আওয়ামী লীগের ভালুকায় দুস্থদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে উপহার বিতরণ গাজীপুরের টঙ্গী প্রেসক্লাবের আগুন নিয়ন্ত্রণে এলপিজির দাম কমে এখন ৯০৬ টাকা গাজীপুর মহানগর যুবলীগের উদ্যোগে দরিদ্র মানুষের মধ্যে ইফতার বিতরণ

মাস্টাররােলে চাকুরীরত আনােয়ার শ্রীপুর পৌরসভার মাস্টার রুলার

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ১ মে ২০২১  

শ্রীপুর প্রতিনিধিঃ গাজীপুর জেলার শ্রীপুর পৌরসভার বাসিন্দা মৃত হাবিবুর রহমানের পুত্র মােঃ আনােয়ার পারভেজ রােমান শ্রীপুর পৌরসভা নিয়োগ বাণিজ্যসহ পৌরসভা অফিসের অদৃশ্য নিয়ন্ত্রক হয়ে উঠেছে। মাত্র ০৭ হাজার টাকা বেতনে মাস্টাররােলে চাকুরী করে মাওনা চৌরাস্তায় সামিয়া সুজ, আজাদ ফুটওয়্যার, এসএস স্যানেটারী ও অরেকটি ইলেকট্রনিক্স এর দোকনসহ ০৪ টি দোকান ও একাধিক বাড়ীর মালিক বনে গেছেন। শ্রীপুর পৌরসভার অধিকাংশ দাপ্তরিক কাজ আনােয়ারের ইশারা ছাড়া নড়ে না। বর্তমান মেয়রের আস্থাভাজন পরিচয় দিয়ে অফিসের নিম্নপদে কর্মরত সহকর্মীদেরকেও জিম্মি করে রেখেছে। চাঁদাবাজি, নিয়ােগ বাণিজ্য, চাকুরী স্থায়ীকরণের নামে অর্থ আত্মসাৎ, ট্রেড লাইসেন্স প্রদান, পৌর এলাকার জমির দালালী, জুয়াসহ বিভিন্ন অবৈধ কর্মকান্ডে পৌর এলাকার মানুষ তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ। 

আনােয়ার শ্রীপুর পৌরসভার মেয়রের নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করে চলাফেরা করে। শ্রীপুর পৌরসভায় ০১ টি ড্রেনের কাজ অনুমােদন হলে আনােয়ার পারভেজ এলাকার লােকজনের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা করে চাঁদা দাবি করে। স্থানীয় এলাকাবাসী কাজটি করিয়ে দেওয়ার নামে টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে সে ড্রেনের কাজ কৌশলে বন্ধ করে দেয়, যা অদ্যাবধি বন্ধ রয়েছে। এছাড়াও শ্রীপুর পৌরসভা হতে যে কোন ধরণের ট্রেড লাইসেন্স নিতে গেলে তাকে ঘুষ না দিয়ে ট্রেড লাইসেন্স পাওয়া যায় না। ট্রেড লাইসেন্সের জন্য তাকে ঘুষ দিলেই যে কেউ লাইসেন্স পায় বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভূক্তভােগীরা প্রতিবেদককে জানায়। 

এলাকায় কেউ জমি বিক্রি করতে চাইলে, জমির দালালি করে জমির মালিকের নিকট থেকে সামান্য টাকায় বায়না করে রাখে। সে জমি অন্যত্র বিক্রয় করতে পারলে তখন জমির প্রকৃত মালিককে অর্ধেক টাকা দেয় আর বাকী টাকা আত্মসাৎ করে। বিক্রি করতে না পারলে জমির মালিককে উক্ত জমি অন্যত্র বিক্রি করতে দেয় না। 

আনােয়ার পারভেজ রোমানের ০১ টি সক্রিয় গ্রুপ আছে। এরা হলো হুমায়ুন কবির, পিতা-মৃত হযরত আলী মুন্সি ও সুমন মিয়া, পিতা-মৃত আবুল কাশেম মুন্সি। এই চক্রটি গত ০৪ বৎসর পূর্বে নিজ এলাকায় গােডাউন সদৃশ ঘর তৈরি করে সেখানে প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত অবধি টেনিস, ব্যাডমিন্টন ও অন্যান্য খেলাধূলার আড়ালে জুয়ার আয়ােজন করে। যেখানে বড় অংকের টাকা বাজি ধরে অবৈধ অর্থ লেনদেন করা হতাে। আনােয়ার পারভেজ এসব খেলায় বাজিগর হিসেবে প্রচুর অর্থবিত্তের মালিক বনে যায়। এতে এলাকার যুব সমাজ জুয়া-মাদকে আসক্ত হয়ে সামাজিক অস্থিরতা বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে। 

আনােয়ার বর্তমান মেয়রের ঘনিষ্ঠ লােক হিসেবে নিজেকে জাহির করে শ্রীপুর পৌরসভায় লােকজনকে মাস্টার রােলে চাকুরী দেওয়া বা চাকুরী স্থায়ী করণের কথা বলে মােটা অংকের ঘুষ লেনদেন করে। স্থানীয় মমতাজ উদ্দিন মুন্সির ছেলে তুহিন মুন্সিকে শ্রীপুর পৌরসভায় মাস্টাররােলে চাকুরী দিয়ে চাকুরী স্থায়ীকরণের জন্য তুহিনের নিকট হতে আনােয়ার ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। উক্ত টাকা সে দিতে রাজী না হলে চক্রান্ত করে তুহিনকে চাকুরীচ্যুত করে। এসব বিষয়ে মেয়র সাহেবের সাথে যােগাযােগের চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। 

একজন মাস্টাররােলে চাকুরীরত কর্মচারী পৌরসভার মত একটি জনকল্যানমূলক প্রতিষ্ঠানে কিভাবে এত প্রভাবশালী হয়ে ওঠে? 
আনােয়ার পারভেজের এই দৌরাত্মের লাগাম টেনে ধরার কি কেউ নেই !

গাজীপুর কথা
গাজীপুর কথা