ব্রেকিং:
গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে টিকা নিয়েছেন এক লাখ ২৫ হাজার ৭৫২ জন। সবমিলিয়ে টিকা গ্রহীতার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩১ লাখ ১০ হাজার ৫২৫ জন। করোনা আপডেট বাংলাদেশ ২৮/০২/২০২১: করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় দেশে ০৮ জনের মৃত্যু এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৪০৮, নতুন ৩৮৫ জন সহ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫৪৬২১৬ জন। নতুন ৮১৭ জন সহ মোট সুস্থ ৪৯৬৯২৪ জন। একদিনে ১৩৪১১টি সহ মোট নমুনা পরীক্ষা ৪০৪৪০২৭টি।
  • সোমবার   ০১ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৬ ১৪২৭

  • || ১৭ রজব ১৪৪২

সর্বশেষ:
বিত্তশালীদেরও শিক্ষাসহায়তায় এগিয়ে আসার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর আধুনিক বিশ্বের মতো উন্নত বিদ্যুৎ ব্যবস্থায় যাচ্ছে দেশ দেশে করোনা টিকা নিয়েছেন প্রায় ৩০ লাখ মানুষ ৩০ মার্চ খুলে দেওয়া হবে দেশের সব স্কুল ও কলেজ : শিক্ষামন্ত্রী ২৮ ফেব্রুয়ারি, পপ সম্রাট বীর মুক্তিযোদ্ধা আজম খানের জন্মদিন করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পঞ্চম ধাপে ২৯ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ চলছে বাংলাদেশ থেকে ১২ হাজার কর্মী নেবে সিঙ্গাপুর, রোমানিয়া গাজীপুরের কালিয়াকৈর বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে আশার ঝলক বন্ডের বাজার রমরমা ॥ রেকর্ড পরিমাণ লেনদেন আর্থিক প্রতিষ্ঠানে লুটপাট ঠেকাতে বলেছেন হাইকোর্ট ডুয়েটে ‘রিসার্চ প্রোপোজাল,পাবলিকেশন অ্যান্ড ডকুমেন্টেশন’ কর্মশালা ভালুকায় বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের আঞ্চলিক শাখা কমিটি গঠিত কাপাসিয়ায় ঘর পেল অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ২ পরিবার

মঙ্গলগ্রহের যেসব স্থানে বাড়ি তৈরি করা যাবে

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

আমেরিকান মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা জানিয়েছে, মঙ্গলগ্রহের কোন কোন জায়গায় ভবিষ্যতে মানুষ ঘর-বাড়ি তৈরি করে থাকতে পারবে। জানা গেছে, নাসা এরই মধ্যে বসবাসের জায়গাগুলো নিয়ে একটি মানচিত্রও তৈরি করেছে।

মানুষের বসতি গড়ে তোলার প্রথম শর্ত হলো পানির পর্যাপ্ত জোগান। নাসা দাবি করছে, ওইসব জায়গায় বসতি গড়ে তুললে পানির কোনো অভাব হবে না। এই প্রথম মঙ্গলগ্রহে বসবাসযোগ্য জায়গাগুলোর সন্ধান দিয়েছে নাসা।

নেচার অ্যাস্ট্রোনমি নামের একটি বিজ্ঞানবিষয়ক জার্নালে নাসার প্রকাশিত মানচিত্র জায়গা পেয়েছে। সেই সব জায়গাগুলোর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেছে তারা।

লাল গ্রহের উত্তর গোলার্ধের মেরু এলাকাগুলোতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি রয়েছে বলে জানিয়েছে নাসা। ওইসব এলাকায় পানি ভূপৃষ্ঠের অনেকটা নিচে নেই। ফলে সেই পানি তুলে আনার কাজটাও সহজ হবে।

পানি বললে অবশ্য ভুল হবে। সেই সব এলাকায় পানি রয়েছে বরফ আকারে। বহু এলাকায় তাপমাত্রার তারতম্যের জন্য পানি মাটির উপরেও বেরিয়ে এসেছে বলে জানিয়েছে নাসা।

নাসার তিনটি মহাকাশযান ‘মার্স ওডিসি’, ‘মার্স রিকনাইস্যান্স অরবিটার' ও ‘মার্স গ্লোবাল সার্ভেয়ার' (এমজিএস) ওইসব এলাকায় পানির সন্ধান দিয়েছে। এই তিন মহাকাশযানের পাঠানো তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই মানচিত্র তৈরি করেছে নাসা।

প্রায় ২০ বছর ধরে এ জায়গাগুলো খুঁজে নেয়ার চেষ্টা করছিল নাসা। ২০১৫ সালের পর থেকে বেশকিছু জায়গা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য হাতে আসে তাদের।

মঙ্গলের উত্তর মেরুর বিস্তীর্ণ এলাকার পানি দিয়ে চাষবাস করাও যেতে পারে বলে জানানো হয়েছে। সেই পানি থেকে হাইড্রোজেন ও অক্সিজেন গ্যাস বের করে রকেটের জ্বালানি হিসেবেও কাজে লাগানো যেতে পারে।

গাজীপুর কথা