ব্রেকিং:
করোনা আপডেট বাংলাদেশ ০৫/জুলাই/২০২০ : করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৫৫ জনের মৃত্যু এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২০৫২, নতুন ২৭৩৮ জনসহ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১৬২৪১৭, মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭২৬২৫ জন, একদিনে ১৩৯৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা।
  • সোমবার   ০৬ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৭

  • || ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪১

সর্বশেষ:
ডোনাল্ড ট্রাম্পকে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ডেল্টা প্ল্যান বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে কাউন্সিল গঠন চামড়াশিল্প রক্ষায় আসছে একগুচ্ছ প্রণোদনা ৭ জুলাইয়ের মধ্যে ঢাবিতে পুরোদমে অনলাইন ক্লাস ত্রাণ পেয়েছে ৭ কোটি ৩৫ লাখ মানুষ চলতি মাসেই জুনের বেতন পাবেন রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা গাজীপুরের কালীগঞ্জ পৌরসভার ৩টি ওয়ার্ডের লকডাউন প্রত্যাহার অনলাইনে পশুর হাটের উদ্যোগ গাজীপুর জেলা প্রশাসনের শ্রীপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে নেতাকর্মীদের মাঝে গাছের চারা বিতরণ
৮০

বাজারে ছেয়ে গেছে নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার: স্বাস্থ্য ঝুঁকির শঙ্কা

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ১৫ জুন ২০২০  

দেশজুড়ে চলছে মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। মানুষের মাঝে বেড়েছে স্বাস্থ্য সচেতনা। আর এই সুযোগে বাজারে ছেয়ে গেছে নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও বিভিন্ন কোম্পানির নকল জীবাণুনাশক। এতে মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকির শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে যশোরের বিভিন্ন বাজারে এই ধরনের নকল স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী পাওয়া যাচ্ছে। করোনার প্রাদুর্ভাবের পর থেকে মানুষের মাঝে জীবাণুনাশক পণ্যের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় এমন সুযোগ নিচ্ছে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী।

সরেজমিনে দেখা যায়, যশোর জেনারেল হাসপাতাল এলাকা, চিত্রার মোড়, কাপুড়িয়া পট্টি ও এর আশপাশের বিভিন্ন এলাকার অস্থায়ী দোকানগুলোতে এই ধরনের নকল জীবণুনাশক পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে অধিক দামেও এগুলো বিক্রির অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

১০০ মিলিগ্রাম হ্যান্ড স্যানিটাইজারের দাম নেয়া হচ্ছে ৬০ টাকা। এ ছাড়া ভিটাসল ১০০ টাকা, ৫০ মিলিগ্রাম কেয়ার হেক্সিসল হ্যান্ড স্যানিটাইজার ৪০ টাকা, ৫০ মিলিগ্রাম অ্যাকটিভ হ্যান্ডরাব ৫০ টাকা, ৫০ মিলিগ্রাম হেক্সিরাব ৬০ টাকা, এক লিটার ক্যাভলন ৩৮০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে।

fake hand saniitaizer

এ বিষয়ে ক্রেতারা জানান, অধিকাংশ পণ্যে উৎপাদন ও মেয়াদের কোনো তারিখ নেই। পণ্যগুলো কোন প্রতিষ্ঠান আমদানি করছে তাও কোথাও উল্লেখ নেই। তারপরও এসব পণ্য কিনছেন সাধারণ মানুষ। এক্ষেত্রে কোনো যাচাই-বাচাই করা হচ্ছে না।

জেলা সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন বলেন, এই ধরনের পণ্য ব্যবহারে চর্মরোগ, পেটের পীড়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়বে। শিগগিরই নকল ও অনিরাপদ পণ্য বিক্রি বন্ধে অভিযান চালানো হবে। 
সূত্র: ২৪লাইভ নিউজ পেপার

গাজীপুর কথা