ব্রেকিং:
করোনা আপডেট বাংলাদেশ ২৪/০২/২০২১: করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় দেশে ০৫ জনের মৃত্যু এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৩৭৯, নতুন ৪২৮ জন সহ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫৪৪৫৪৪ জন। নতুন ৯১১ জন সহ মোট সুস্থ ৪৯৩৭৯৮ জন। একদিনে ১৬১৫২টি সহ মোট নমুনা পরীক্ষা ৩৯৮৭৬৭৬টি।
  • বৃহস্পতিবার   ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১২ ১৪২৭

  • || ১৩ রজব ১৪৪২

সর্বশেষ:
বাংলাদেশেই যুদ্ধবিমান তৈরি করা হবে : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর ও বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। ৫৭ লাখ কৃষক পেলেন ৩৭২ কোটি টাকার প্রণোদনা টিকা কিনতে ৯৪ কোটি ডলার সহায়তা দেবে এডিবি করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রাত-দিন চলছে কাজ, মেট্রোরেলের লাইন বসেছে ৭ কিলোমিটার বাংলাদেশ থেকে ১২ হাজার কর্মী নেবে সিঙ্গাপুর, রোমানিয়া হল খুলছে ১৭ মে, বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু ২৪ মে : শিক্ষামন্ত্রী বন্ডের বাজার রমরমা ॥ রেকর্ড পরিমাণ লেনদেন আর্থিক প্রতিষ্ঠানে লুটপাট ঠেকাতে বলেছেন হাইকোর্ট ডুয়েটে ‘রিসার্চ প্রোপোজাল,পাবলিকেশন অ্যান্ড ডকুমেন্টেশন’ কর্মশালা ভালুকায় বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের আঞ্চলিক শাখা কমিটি গঠিত কাপাসিয়ায় ঘর পেল অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ২ পরিবার

পাঁচ হাজার বছরের প্রাচীন মদের কারখানার সন্ধান

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

বিশ্বের মানুষের কাছে প্রাচীন মিশর আজও বিস্ময়ের নাম। সেখানে কয়েক হাজার বছর আগেকার পৃথিবীর জলছাপ এখনো লেগে রয়েছে। এবার দেশটিতে মাটি খুঁড়ে মিলল বিপুল পরিমাণ মদের ভাণ্ডার।
রোববার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রাচীন মিশর শহর যা বর্তমানে ইজিপ্ট নামে পরিচিত। সেখানে মাটি খুঁড়ে বিপুল পরিমাণ মদের ভাণ্ডারের সন্ধান মিলেছে। আজ থেকে হাজার হাজার বছর আগে মদ তৈরি করে জমিয়ে রাখার ঘটনায় সাক্ষী হতে পেরে অভিভূত প্রত্নতাত্ত্বিককরা। এটাই হয়তো পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন মদ তৈরির কারখানা।

এর আগে ২০১৫ সালে মিশরে মদ তৈরির প্রমাণ মেলে। বিভিন্ন মাটির ধ্বংসাবশেষ থেকে তা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু নিঃসন্দেহে এই বিপুল পরিমাণ মদের কারখানা বিস্ময়কর। 

প্রতিবেদনে জানানো হয়, সব মিলিয়ে আটটি মদ রাখার বড় বিশেষ পাত্র ছিল। একেকটি বিশেষ পাত্রে ৪০টি করে মদ রাখার পাত্র ছিল। যুক্তরাষ্ট্র ও ইজিপ্টের যৌথ উদ্যোগে দেশটির অ্যাবিডোসে এলাকায় ওই খননকাজ চালিয়ে এই প্রাচীন মদের ভাণ্ডারের সন্ধান পায়। 

খননকাজের প্রধান নিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ম্যাথু অ্যাডামস জানানা, মিশরের রাজ পরিবারের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় ব্যবহারের জন্য হয়তো এখানে মদ তৈরি করা হত। 

প্রত্নতাত্ত্বিকদের ধারণা, আটটি বড় বিশেষ পাত্র মদ তৈরির জন্য ব্যবহার করা হয়েছে।

দেশটির সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই প্রথম প্রাচীন মদের কারখানার সন্ধান মিলেছে। তবে বিংশ শতাব্দীতে ব্রিটিশ প্রত্নতাত্ত্বিকরা এই কারখানার আবিষ্কার করেন। পরে তারা জায়গাটির হদিস হারিয়ে ফেলেন। এতদিনে এগুলোর সন্ধান মিলেছে। তবে কেবল এলাকাটি খুঁজে বের করা নয়, পাত্রগুলোকে খুলে তা পরীক্ষা করেও দেখা হয়েছে।

গাজীপুর কথা