ব্রেকিং:
করোনা আপডেট বাংলাদেশ ০৯/০৫/২০২১: করোনা আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৫৬ জনের মৃত্যু এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১৯৩৪ জন, নতুন ১৩৮৬ জন সহ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭৭৩৫১৩ জন। নতুন ৩৩২৯ জন সহ মোট সুস্থ ৭১০১৬২ জন । একদিনে ১৬৯১৫টি সহ মোট নমুনা পরীক্ষা ৫৬৩০৮৯৪টি।
  • সোমবার   ১০ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৬ ১৪২৮

  • || ২৮ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
পবিত্র শবেকদর আজ ৯মে, দেশবরেণ্য পরমাণু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী `ভালোবাসার বন্ধন আরো সুদৃঢ় হবে`, শেখ হাসিনাকে মমতা করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৩৪ লক্ষাধিক মানুষ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ১ হাজার গাছ লাগানো হবে দেশে ৯০০ টন অক্সিজেন মজুদ আছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী কাপাসিয়ায় কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা আলম আহমেদের ইফতার বিতরণ দেশের সব ফেরিঘাটে বিজিবি মোতায়েন

ঘুরে আসার জন্য চমৎকার একটি জায়গা গাজীপুরের বেলাই বিল

গাজীপুর কথা

প্রকাশিত: ১২ জুলাই ২০২০  

স্বল্প খরচে কোথাও ঘুরে আসতে চাইলে চলে যেতে পারেন ঢাকার কাছাকাছি গাজীপুরের বেলাই বিলে। এই বর্ষায় একদিনের জন্য ঘুরে আসার চমৎকার একটি জায়গা বেলাই বিল।

নদী ও বিলের অপূর্ব সংমিশ্রণ এই বিলটি গাজীপুরের কানাইয়া বাজার নামক এলাকায় নিজের অপার সৌন্দর্য নিয়ে বিরাজ করছে। চেলাই নদীর সাথে বেলাই বিল। বর্তমানে বিলটি আট বর্গমাইল এলাকা জুড়ে বিস্তৃত হলেও একসময় এটি আরো বড় ছিল। বাড়িয়া, ব্রাহ্মণগাও, বক্তারপুর ও বামচিনি মৌজা গ্রাম নিয়ে বেলাই বিল। কিন্তু একসময় বেলাই বিলের চারদিকে কোন গ্রাম ছিল না। খরস্রোতা চেলাই নদীর মতো বেলাই বিল ও ছিল খরস্রোতা। কথিত আছে ভাওয়ালের ভূস্বামী ঘটেশ্বর ঘোষ ৮০ টি খাল কেটে চেলাই নদীর পানি নিঃশেষ করে ফেলেন। তারপরই এটি প্রকাণ্ড বিলে পরিণত হয়। বর্ষায় জেলেরা বিলের চারপাশে মাছ ধরার জন্য ডাঙ্গি খনন করে।

বিলের মধ্যে সারাবছর পানি না থাকলেও বর্ষায় দ্বিগুণ সৌন্দর্য নিয়ে হাজির হয়। সারা বিল জুড়ে চলে শাপলা ফুলের মেলা। লাল সাদা শাপলার যেন তাদের নিজস্ব রাজ্য খুলে বসে আছে। কানাইয়া বাজারের ঘাটে থাকা ডিঙ্গি বা ইঞ্জিনচালিত নৌকায় চড়ে চাইলে চক্কর দিয়ে আসতে পারেন পুরা বিলটি।

এই গ্রামটির এক মজার ব্যাপার গ্রামটির একটা মৌজায় কেবলমাত্র একটিই বাড়ি যা বাংলাদেশের আর কোথাও এমন নজির নেই। এই মনোরম দৃশ্যের সাথে চায়ের তৃষ্ণা আসলে কানাইয়া বাজারে গিয়ে চা বিস্কুট খেয়ে আসতে পারেন। তবে দীর্ঘ সময়ের জন্য ভ্রমণে গেলে সাথে কিছু খাবার নিয়ে যাওয়াই শ্রেয়।

কিভাবে যাবেন: গুলিস্তান থেকে বাসে গাজীপুর বাস-স্ট্যান্ড। আবার চাইলে মহাখালী থেকেও বাস নিতে পারেন। গাজীপুর বাস স্ট্যান্ড থেকে রিকশা বা টেম্পোতে কানাইয়া বাজার। কানাইয়া বাজার ঘাটে সারি সারি নৌকা বাঁধা। দরদাম করে উঠে পড়ুন। চাইলে নিজস্ব বাহনেও যেতে পারেন দলবেঁধে। বর্ষাকাল বেলাই ভ্রমণের উপযুক্ত সময়। নিজস্ব গাড়িতে টঙ্গী-পুবাইল হয়ে কানাইয়া যেতে সময় বাঁচবে, সঙ্গে যুক্ত হবে মনোরম পথ-সৌন্দর্য। এক দিনের জন্য দারুণ বেড়ানো হবে।

এখানে ইঞ্জিন চালিত আর ডিঙ্গি নৌকা দুটোই পাওয়া যায়। তাড়া থাকলে ইঞ্জিন নৌকা, আর হাতে সময় থাকলে হাতে বাওয়া ডিঙ্গি নৌকা নিয়ে নিতে পারেন। মাঝির সাথে কথা বলে নিজেই সেই নৌকা বেয়ে দেখতে পারেন, ভিন্ন একটা অভিজ্ঞতা হবে সন্দেহ নেই। নৌকা সারাদিনের জন্য ভাড়া করে নিতে পারেন।

গাজীপুর কথা
গাজীপুর কথা